যখনই চুলের যত্ন নেওয়ার কথা ওঠে, আপনার মা-ঠাকুমা-দিদিমা-হেয়ার স্টাইলিস্ট-বন্ধুবান্ধব সকলেই নানা পরামর্শ দিতে ঝাঁপিয়ে পড়েন| কেউ বলেন চুলের যত্নে তেলের ব্যবহার খুব জরুরি, আবার কারও মতে একেবারেই তেল ব্যবহার করা উচিত নয়| তাই চুলের সঠিক যত্ন ঠিক কীভাবে নেওয়া উচিত, তা নিয়ে অনেকেই সংশয়ে ভোগেন| আপনার জন্য রয়েছে কয়েকটি সহজ পরামর্শ আর কৌশল, যাতে আপনার চুলও হয়ে ওঠে স্বপ্নের কেশবতী কন্যার মতোই সুন্দর|

চুল ধোয়া
চুল শুকিয়ে নেওয়া ও আঁচড়ানো

চুল ধোয়া
 

চুল ধোয়া

হ্যাঁ, চুলের যত্নের প্রথম কথা হল, প্রাথমিক যত্নাত্তিটুকু ঠিকভাবে করতে হবে| স্নানের সময়ে আমরা এমন কয়েকটি ভুল করে ফেলি, যার ফলে চুল দেখায় বিবর্ণ আর নিষ্প্রাণ|

. ব্যবহার করুন ঠান্ডা বা ঈষদুষ্ণ জল: শাওয়ারের নিচে দাঁড়িয়ে গরম জলের ধারায় স্নান করাটা খুবই আরামদায়ক বটে, কিন্তু এর ফলে আপনার চুল হয় শুষ্ক আর তার আগার দিকগুলি হয়ে যায় ভঙ্গুর| সব সময়ে চুল ধুতে ব্যবহার করুন ঈষদুষ্ণ জল, যাতে আপনার চুলে ঠিকঠাক আর্দ্রতা বজায় থাকে|

. শ্যাম্পু ব্যবহারের সময়ে তা সামান্য জল দিয়ে আরও তরল করে নিন: আপনার শ্যাম্পুর কাজই হল চুল থেকে ধুলোময়লা আর তেল দূর করা| চুলের স্বাভাবিক তেল কোনটা আর কোনটাই বা বাইরে থেকে লাগানো কৃত্রিম তেল, সেটা বোঝা শ্যাম্পুর পক্ষে অসম্ভব| তাই খানিকটা শ্যাম্পুর সঙ্গে অল্প পরিমাণ জল মিশিয়ে আরও তরল করে তারপর সেটি চুলে লাগান|

. প্রতিদিন চুল ধোয়া এড়িয়ে চলুন: আপনি হয়তো ভাবছেন যে রোজ রোজ চুল না ধোয়া অস্বাস্থ্যকর, কিন্তু আসল সত্যিটা হল আপনার চুল রোজ রোজ ধোয়ার কোনও প্রয়োজনই নেই| তাতে চুলের স্বাভাবিক তৈলাক্তভাব নষ্ট হয়ে যায় আর চুল পড়ার প্রবণতা বেড়ে যায়|

চুল শুকিয়ে নেওয়া ও আঁচড়ানো
 

চুল শুকিয়ে নেওয়া ও আঁচড়ানো

. সম্ভব হলে বাতাসে চুল শুকিয়ে নিন: বাতাসে স্বাভাবিকভাবে ভেজা চুল শুকিয়ে নিন| যদি ব্লো ড্রাই করতেই হয়, তাহলে ড্রায়ার ব্যবহারের আগে চুল অন্তত কিছুটা শুকনো করে নেওয়া দরকার|

. ফাঁকফাঁক আর মোটা দাঁতের চিরুনি ব্যবহার করুন:  ভিজে, আধশুকনো আর সদ্য শুকিয়ে ওঠা চুল আঁচড়ানোর জন্য ফাঁকফাঁক আর মোটা দাঁত আছে, তেমন চিরুনি ব্যবহার করুন| এতে চুলের ক্ষতি আর চুল ছিঁড়ে যাওয়া প্রতিরোধ করা যাবে|

. ভিজে চুলে বাইরে বেরোবেন না: ধুলোময়লা আর তেল খুব তাড়াতাড়ি আর সহজে তৈলাক্ত আর ভিজে চুলে আটকে যায়| তাই চুল ধোয়ার পরে সঙ্গেসঙ্গে বাইরে না বেরোনোই ভালো|