বাতাসে হিমের ছোঁয়া লেগে গেছে রীতিমতো! তাপমাত্রা কমে শিরশির করছে গা, আর্দ্রতা কমে হাতেপায়ে টান ধরছে। শুধু তাই নয়, শীতের কারণে ভীষণ ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে চুলও। ক্রমশ কমতে থাকা তাপমাত্রা আর আর্দ্রতার অভাবে চুল বিবর্ণ, শুষ্ক আর নিষ্প্রাণ দেখায়। শুধু তাই নয়, এর ফলে চুল ভঙ্গুর হয়ে যায়, এমনকী চুল ঝরেও যেতে পারে।

তবে এক্ষুনি দুশ্চিন্তা করার দরকার নেই, কারণ সমস্যা যেমন রয়েছে, তার সমাধানও আছে হাতের কাছেই! কিছু টিপস মেনে চুলের যত্ন নিন আর সেই সঙ্গে জীবনধারায় আনুন কিছু সহজ পরিবর্তন। তাতেই শুষ্কতা কেটে চুল ফের সজীব হয়ে উঠবে। চুল ঝরা বন্ধ হবে, সার্বিকভাবে চুলের স্বাস্থ্যও হয়ে উঠবে আরও ভালো!

 

01. সপ্তাহে এক-দু'বার শ্যাম্পু করুন

01. সপ্তাহে এক-দু'বার শ্যাম্পু করুন

প্রতিদিন শ্যাম্পু করলে চুলের প্রাকৃতিক আর্দ্রতা নষ্ট হয়ে গিয়ে চুল শুষ্ক আর নিষ্প্রাণ হয়ে পড়তে পারে। শীতের দিনে বাতাসে আর্দ্রতা কম থাকার কারণে সমস্যা বেশি হয়। ফলে সপ্তাহে এক কি দু'বারের বেশি শ্যাম্পু করবেন না। ডাভ অক্সিজেন ময়শ্চার শ্যাম্পু/ Dove Oxygen Moisture Shampoo-র মতো হাইড্রেটিং শ্যাম্পু ব্যবহার করুন। গরম জলে চুল ধোবেন না, আর্দ্রতা চুলের গভীরে ধরে রাখতে আর রুক্ষতা কমাতে কন্ডিশনার অবশ্যই লাগাবেন।

 

02. লিভ-ইন কন্ডিশনার লাগান

02. লিভ-ইন কন্ডিশনার লাগান

শীতের দিনে চুলে স্ট্যাটিক ইলেকট্রিসিটির পরিমাণ বেড়ে যায়, যা চুল উঠে যাওয়ার বড় কারণ। এই সমস্যার মোকাবিলা করতে চুল ধোওয়ার রুটিনে যোগ করুন লিভ-ইন কন্ডিশনার। শ্যাম্পু আর কন্ডিশন করে চুল ধুয়ে ফেলার পর পর্যাপ্ত পরিমাণে টিজি বেড হেড ইগো বুস্ট লিভ-ইন কন্ডিশনার/ Tigi Bed Head Ego Boost Leave-in Conditioner মেখে নিন চুলের দৈর্ঘ্য বরাবর, ডগার দিকটায় ভালো করে মাখবেন। এর ফলে শ্যাম্পু আর কন্ডিশনার থেকে পাওয়া আর্দ্রতা চুলের গভীরে ধরে রাখতে পারবেন, চুল রুক্ষ হয়ে যাওয়া বা ভেঙে ঝরে যাওয়াও অনেক কমে যাবে!

 

03. সপ্তাহে একদিন হট অয়েল ট্রিটমেন্ট নিন

03. সপ্তাহে একদিন হট অয়েল ট্রিটমেন্ট নিন

শীতের দিনে চুল ভেঙে ঝরে যাওয়া আটকানোর মূল উপায় হল, চুলের আর্দ্রতা ধরে রাখা। ডাভ এলিক্সির হেয়ার অয়েল -রোজ অ্যান্ড আমন্ড অয়েল/ Dove Elixir Hair Fall Rescue Hair Oil - Rose & Almond Oil দিয়ে হট অয়েল মাসাজ করে চুল আর স্ক্যাল্পের যত্ন নিন। এতে স্ক্যাল্পের আর্দ্রতা বজায় থাকবে, চুলের ফলিকলগুলোর শক্তি বৃদ্ধি পাবে, চুলের ইলাস্টিসিটিও মজবুত হবে। আর সব মিলিয়ে চুলের শুষ্কতা আর ভেঙে ঝরে যাওয়ার প্রবণতাও কমবে।

 

04. ভেজা চুল নিয়ে বাইরে বেরোবেন না

04. ভেজা চুল নিয়ে বাইরে বেরোবেন না

ভেজা চুলে বাইরে বেরোলে চুলের ভীষণ ক্ষতি হয়ে যায়, বিশেষ করে শীতের দিনে। শীতের ঠান্ডায় ভেজা চুল ফুলে যায়, ফলে চুল দুর্বল হয়ে পড়ে, ভেঙে ঝরে যাওয়ার প্রবণতাও বেড়ে যায়। চুলে রং করা থাকলে সে রং দ্রুত ফিকে হয়ে যায়। ফলে এমন দিনে শ্যাম্পু করুন, যখন আপনাকে তাড়াহুড়ো করে বাইরে বেরোতে হবে না। হাতে সময় নিয়ে শ্যাম্পু করুন। অথবা চুল ব্লো ড্রায়ার দিয়ে শুকিয়ে নিন (ড্রায়ারের তাপমাত্রা সবচেয়ে কম সেটিংয়ে রাখবেন), চুল পুরো শুকনো হলে তবেই বাড়ির বাইরে পা রাখুন।

 

05. হিট স্টাইলিং করবেন না

05. হিট স্টাইলিং করবেন না

শীতের দিনে চুল এমনিতেই দুর্বল আর শুকনো থাকে। তার ওপরে হিট স্টাইলিং করলে চুলের আর্দ্রতা আরও নষ্ট হয়ে যায়, চুল শুষ্ক আর নিষ্প্রভ হয়ে পড়ে। কাজেই শীতের দিনে চুল কোমল আর ঝলমলে রাখতে হিট স্টাইলিং যথাসম্ভব এড়িয়ে চলুন। একান্ত যদি স্টাইল করতেই হয়, তা হলে তাপজনিত ক্ষতি আর চুল ভাঙাঝরা কমাতে পর্যাপ্ত পরিমাণে ট্রেসমে কেরাটিন স্মুদ হিট প্রোটেকশন স্প্রে/Tresemme Keratin Smooth Heat Protection Spray লাগিয়ে নিতে ভুলবেন না!