গালে হালকা গোলাপি আভা না থাকলে যেন সাজগোজটাই সম্পূর্ণ হয় না! আর সেই আভা আনতে ব্লাশার ছাড়া আর উপায় কী! ত্বকের রঙের সঙ্গে মানানসই সঠিক শেডের ব্লাশার আপনার গায়ের রং আরও উজ্জ্বল করে তোলে, মুখের সুন্দর দিকগুলো আরও ফুটিয়ে তোলে আর সেই সঙ্গে আপনাকে অনেক কমবয়সী দেখায়! বুঝতেই পারছেন, এই এতরকম সুবিধে পেতে হলে প্রতিবার ব্লাশার লাগানোর সময় বিশেষ খেয়াল রাখতেই হবে!

অবশ্য এর উলটো দিকটাও আছে। যদি ঠিকঠাক ব্লাশারের শেড বেছে নেওয়া না হয়, তা হলে কিন্তু ব্লাশারের কোনও সুবিধে আপনি পাবেনই না, বরং উলটো ফল হবে! তাই লুক নিখুঁত করতে সঠিক শেডের ব্লাশারই লাগাতে হবে। কীরকম ত্বকের রঙে কী শেডের ব্লাশার ব্যবহার করবেন তার একটা সহজ গাইডলাইন দিয়ে দিলাম আমরা।

 

ফরসা ত্বকের জন্য

ফরসা ত্বকের জন্য

ফরসা গায়ের রঙে উজ্জ্বল রঙের ব্লাশার লাগানোর লোভ হতেই পারে, কিন্তু সেটা না করে এমন শেড বাছুন যা আপনার ফরসা রংকে আরও সুন্দর করে তুলবে! নরম গোলাপি, পিচ, হালকা কোরাল শেডের ব্লাশার আপনার ফরসা রঙে একটা স্বাভাবিক দীপ্তি এনে দেবে। ঠিকঠাক লাগাতে পারলে ফরসা রঙে এ সব শেড দারুণ মানায়। আঙুলে করে ব্লাশার নিয়ে গালে লাগান, পাউডার ব্রাশও ব্যবহার করতে পারেন। খুব বেশি পরিমাণে ব্লাশ লাগালে কৃত্রিম দেখাবে, তাই শেড বাছাই আর লাগানোর সময় সতর্ক থাকবেন।

 

মাঝারি গায়ের রঙের জন্য

মাঝারি গায়ের রঙের জন্য

মাঝারি রং যাঁদের, তাঁদের জন্য ব্লাশারের অজস্র শেড রয়েছে যা দিয়ে নানারকম লুক তৈরি করে নিতে পারবেন তাঁরা। পিঙ্ক বা পিচ শেডের ব্লাশ মুখে একটা স্বাভাবিক আভা এনে দেবে। আর একটু সাহসী হতে চাইলে বেছে নিতে পারেন মভের নানা শেড। গালের কোথায় ব্লাশ লাগাবেন বুঝতে পারছেন না? হাসুন আর দেখুন গালের কোন অংশটা উঁচু হয়ে রয়েছে। একদম ঠিক ওই জায়গাটাতেই ব্লাশ লাগান। ব্লেন্ডিংয়ের সময় ঠিকমতো ব্লাশ লাগানোর জন্য বাইরের দিকে চোখের নিচের দিক বরাবর ব্রাশ চালান।

 

শ্যামবর্ণাদের জন্য

শ্যামবর্ণাদের জন্য

শ্যামলা মেয়েদের জন্য সঠিক ব্লাশ শেড বাছাইয়ের একটা সহজ উপায় আছে। এমন একটা শেড বেছে নিন যা প্যাকেটের উপর থেকে অসম্ভব উজ্জ্বল দেখায়। ব্রাউনের গাঢ় শেড, লাল, কমলায় আপনাকে দারুণ ঝলমলে দেখাবে। এড়িয়ে চলুন পাউডার পিঙ্ক, আর লাল ও কোরালের হালকা শেড, কারণ এ সব শেডে আপনাকে খুব ফ্যাকাশে লাগতে পারে। মুখে রঙের দীপ্তি ছড়িয়ে দিতে আঙুলে করে ব্লাশ বৃত্তাকারে নিয়ে গালে লাগান, তারপর আউটওয়ার্ড স্ট্রোকে কানের দিকে ব্লেন্ড করে দিন। এতে গালে খুব সুন্দর রঙের আভা আসবে, দেখাবেও দারুণ!