গত দু'বছরে পৃথিবীটা মোটামুটি সব ক্ষেত্রেই ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে সরিয়ে নিয়েছে নিজেকে। অফিসের কাজ হচ্ছে বাড়িতে বসে, সহকর্মী আর অফিসের বন্ধুদের সঙ্গে কথা বলতে ভরসা ভিডিও কল। আর সেই ক্যামেরায় নিজেকে সবচেয়ে সুন্দর দেখাক এটা যদি চান, তবে মাথায় রাখতে হবে কিছু সহজ নিয়ম। রোজ যেমন মেকআপ আপনি করেন, তা ক্যামেরার পক্ষে যথেষ্ট নয়। যদি আপনাকে রোজ সারাদিন ধরে একাধিক ভিডিও কল আর মিটিংয়ে হাজির থাকতে হয়, তা হলে মাথায় রাখুন রূপচর্চার কিছু সাধারণ নিয়ম। ইনস্টাগ্রামের ভক্তদের জানিয়ে রাখি, সেলফির জন্যও এই নিয়মগুলো দারুণ কার্যকর। মেনে চলুন আর তফাৎটা দেখুন।

 

01. নিউট্রাল মেকআপ লুক ধরে রাখুন

01. নিউট্রাল মেকআপ লুক ধরে রাখুন

ক্যামেরার জন্য সেজে উঠতে হলে নিউট্রাল শেড বেছে নেওয়াই সবচেয়ে নিরাপদ। চোখের পাতায় হালকা ব্রাউন বা পিচ আইশ্যাডোর সঙ্গে শ্যাম্পেন শেড চমৎকার দেখাবে। আইলাইনারের বেলাতেও নরম লুক তৈরি করলে ব্রাউন আইশ্যাডো বা আইলাইনার বেছে নিতে পারেন। ব্রাউন মুখে ডেফিনিশন এনে দেয়, কিন্তু মেকআপ উচ্চকিত হয় না। চোখের পল্লবে ল্যাকমে অ্যাবসলিউট ফ্লাটার সিক্রেটস ভল্যুম মাস্কারা/ Lakmé Absolute Flutter Secrets Volume Mascara এর মতো ঘনত্ব বাড়ানোর মাস্কারা পরে নিলে নতুন মাত্রা আসবে।

 

02. ত্বকের রঙের সবচেয়ে কাছাকাছি শেডের কনসিলার বেছে নিন

02. ত্বকের রঙের সবচেয়ে কাছাকাছি শেডের কনসিলার বেছে নিন

ত্বক উজ্জ্বল করার কনসিলার আমাদের সবার পছন্দ, কিন্তু খুব হালকা শেডের কনসিলার বাছবেন না। হালকা কনসিলার পরলে মুখ স্ক্রিনে বিশ্রী সাদা দেখাতে পারে। বরং ত্বকের রঙের কাছাকাছি শেডের বেস প্রডাক্ট বেছে নিন। কিন্তু শেডই সব নয়, কনসিলারের ফিনিশেরও একটা ভূমিকা রয়েছে। ল্যাকমে নাইন টু ফাইভ প্রাইমার+ম্যাট লিকুইড কনসিলার/ Lakmé 9to5 Primer+Matte Liquid Concealer -এর মতো ম্যাট ফিনিশের কনসিলার বেছে নিন, যাতে আলো পড়লে মুখ খুব চকচক না করে। ভারতীয় ত্বকের উপযোগী এই কনসিলার পাওয়া যায় আটটি শেডে, এবং মুখের ত্রুটি ঢেকে দেওয়ার পাশাপাশি প্রাইমারের ব্লারিং এফেক্টটাও এনে দেয়। একইভাবে হালকা পাউডার মেখে মুখ ফ্যাকাসে করবেন না, বরং গায়ের রঙের সবচেয়ে কাছাকাছি শেডের পাউডার দিয়ে মেকআপ সেট করুন।

 

03. ব্লাশ ব্যবহার করে মুখে আনুন রঙের আভা

03. ব্লাশ ব্যবহার করে মুখে আনুন রঙের আভা

হাইলাইটার লাগালে মুখ ক্যামেরায় ডিস্কো বলের মতো ঝিলমিল করতে পারে। বাস্তব দুনিয়ায় আমাদের সকলেরই হাইলাইটার খুব পছন্দ, কিন্তু ক্যামেরায় এই হাইলাইটারই আপনার সবচেয়ে বড় শত্রু। কোনওরকম হাইলাইটার লাগাবেন না, বরং ব্রোঞ্জার বা ব্লাশ লাগান। মুখে হালকা রঙের আভা অথবা ডাইমেনশন যোগ করতে যে কোনও একটি ব্যবহার করুন, আর হাইলাইটার এড়িয়ে চলুন।

 

04. লিপস্টিকের বদলে লিপ গ্লস লাগান

04. লিপস্টিকের বদলে লিপ গ্লস লাগান

ক্যামেরায় সব কিছুই বাড়াবাড়ি বলে মনে হয়। ম্যাট লিপস্টিক পরলে ঠোঁট খুব শুকনো আর খড়খড়ে লাগতে পারে, তাই সাটিন লিপস্টিক বা গ্লস পরুন। সবচেয়ে ভালো হয় লিপ গ্লস পরলে। লিপ গ্লস মুখে একটা তারুণ্যের সজীবতা এনে দেয়, ঠোঁট ভরাট আর পুষ্ট দেখায়। ল্যাকমে অ্যাবসলিউট স্পটলাইট লিপ গ্লস Lakme Absolute Spotlight Lip Gloss থেকে যে কোনও শেড বেছে নিয়ে ঠোঁটে বুলিয়ে নিন আর ক্যামেরা-রেডি হয়ে যান।

 

05. অবাধ্য চুল বশে রাখুন

05. অবাধ্য চুল বশে রাখুন

উড়ো, অবাধ্য চুল ক্যামেরায় একদম চলবে না। প্রত্যেকটা উড়ো চুল খুব প্রকট হয়ে ক্যামেরায় ধরা পড়ে। তাই ভালো করে চুল আঁচড়ে স্টাইল করে নিন। চুল পাটপাট রাখতে ট্রেসমে কেরাটিন স্মুদ হেয়ার সিরাম/ TRESemmé Keratin Smooth Hair Serum ব্যবহার করতে পারেন। এতে চুল মসৃণ, রুক্ষতামুক্ত, চকচকে আর ম্যানেজেবল থাকবে।