সোশাল মিডিয়ায় চোখ পাতলে প্রায়ই চোখে পড়ছে একটা মজাদার মিম! বক্তব্য হল, আপনি ত্বকের যত্ন নেন ঠিকই, কিন্তু সে যত্নকে আপনার ত্বক পাত্তা দেয় না! প্রথম দেখে মজা লাগলে একটু ভেবে দেখলে বুঝবেন, কথাটার মধ্যে সত্যতা রয়েছে! আমার আপনার মতো অনেক মেয়েই এ মিমের সঙ্গে নিজেদের অবস্থার সাদৃশ্য খুঁজে পেয়েছেন, তা না হলে এ মিম অতটাও ভাইরাল হত না। সত্যি বলতে কী, ত্বকের যত যত্নই আমরা নিই না কেন, মাঝেমাঝে কোনও কিছুই আর যেন কাজ করে না! তেমন হলে হতাশা দেখা দেওয়াটা কিন্তু স্বাভাবিক!

আপনারও কি একইরকম অবস্থা? সে ক্ষেত্রে আপনার ত্বক পরিচর্যার দৈনিক রুটিনে কিছু পরিবর্তন ঘটানোর সময় এসেছে। পরিবর্তন বলতে আপনার নিয়মিত ত্বক পরিচর্যায় কিছু ভিটামিন ঢোকাতে হবে। এই ভিটামিনগুলোর সবক'টিই ত্বকের পক্ষে খুবই উপকারী এবং ভেতর থেকে কাজ করে শরীরে প্রয়োজনীয় পুষ্টিকর উপাদান পৌঁছে দেয় এবং তাতে আপনার স্কিনকেয়ার প্রডাক্টগুলো আরও ভালোভাবে কাজ করতে পারে। নিচে আমরা এমন কিছু অত্যন্ত প্রয়োজনীয় ভিটামিনের কথা উল্লেখ করছি যা আপনাদের দৈনিক ত্বক পরিচর্যার রুটিনে রাখলে দিনে দিনে ত্বক হয়ে উঠবে আরও ঝকঝকে আর উজ্জ্বল।

 

ভিটামিন এ

ভিটামিন এ

ভিটামিন এ-কে সাধারণত আমরা রেটিনল বলেই চিনি। এই বস্তুটি রোজকার ত্বকচর্চার রুটিনে যোগ করার প্রচুর উপকারিতা রয়েছে। তার মধ্যে প্রথম আর প্রধান হল, ত্বককে রোদজনিত ক্ষতির হাত থেকে বাঁচায় রেটিনল। এ ছাড়া ভিটামিন এ শরীরে কোলাজেন তৈরির পরিমাণ বাড়িয়ে দেয়, ফলে বয়সের দাগছোপ কাছে ঘেঁষতে পারে না।

 

ভিটামিন সি

ভিটামিন সি

গোড়াতেই একটা তথ্য দিয়ে দিই! মানুষের শরীরে ভিটামিন সি তৈরি হয় না। তাই স্বাস্থ্যের জেল্লায় ভরপুর, মোমের মতো মসৃণ ত্বক পেতে হলে ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাবার খাওয়া দরকার। সেই সঙ্গে ভিটামিন সি আছে এমন স্কিনকেয়ার প্রডাক্ট আর সেই সঙ্গে ভিটামিন সি সাপ্লিমেন্ট খেতে হবে। ভিটামিন সি অ্যাসরবিক অ্যাসিড নামেও পরিচিত। অসম্ভব কার্যকরী প্রাকৃতিক অ্যান্টিঅক্সিডান্ট এটি, যা আপনার ত্বককে পরিবেশের ফ্রি র‍্যাডিক্যালের হাত থেকে রক্ষা করে।

 

ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড

ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড

ত্বকে সুন্দর, নরম একটা দীপ্তি আনতে চান? আপনার দরকার ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড। নিয়মিত ওমেগা থ্রি সাপ্লিমেন্ট খেলে আপনার ত্বক আর্দ্র আর সতেজ থাকে, হাত দিয়ে ছুঁলেও ত্বক অসম্ভব নরম লাগে। এ ছাড়াও পরিবেশের ক্ষতিকর পদার্থ যাতে ত্বকে সমস্যা তৈরি না করতে পারে, তার জন্য ত্বকের প্রতিরোধ ব্যবস্থাও জোরদার করে তোলে ওমেগা থ্রি।

 

বায়োটিন

বায়োটিন

সুস্থ, স্বাস্থ্যবান ত্বকের জন্য বায়োটিন যৌগটি অত্যন্ত প্রয়োজনীয়। ত্বকের শুষ্কভাব, সূক্ষ্মরেখা, বলিরেখা, এমনকী ব্রণও দূরে রাখে বায়োটিন। ত্বক হয়ে ওঠে আর্দ্র, সতেজ আর স্বাস্থ্যের জেল্লায় ভরপুর!