কন্ডিশনার লাগানোর পর চুলের মসৃণ চকচকে জেল্লা দেখতে, কোমল স্পর্শ পেতে কার না ভালো লাগে বলুন? কন্ডিশনার চুল আর্দ্র রাখে, নরম মোলায়েম করে তোলে। কিন্তু জানেন কি, কন্ডিশনার নামের এই বস্তুটিকে আরও বেশ কয়েকটি কাজে লাগাতে পারেন আপনি?

কন্ডিশনারের 5টি বিকল্প প্রয়োগ খুঁজে বের করেছি আমরা। জানলে আশ্চর্য হয়ে যাবেন আপনিও! কাজেই পড়তে থাকুন...

 

মেকআপ রিমুভার হিসেবে

মেকআপ রিমুভার হিসেবে

মেকআপ তুলতে গিয়ে দেখছেন রিমুভার শেষ? অসুবিধে নেই! পাতলা কাপড়ে অল্প একটু কন্ডিশনার নিন, তারপর মুখে বুলিয়ে তুলে ফেলুন সমস্ত মেকআপ আর তেলময়লা। তারপর ঝটপট ধুয়ে ফেলুন জল দিয়ে।

 

শেভিং ক্রিম হিসেবে

শেভিং ক্রিম হিসেবে

হাত পায়ের রোম তোলার সময় শেভিং ক্রিম ব্যবহার করার পর খুব শুকনো টান ধরে ত্বকে? অনেকেই এই সমস্যায় পড়েন, তা ছাড়া শেভিং ক্রিম বেশ দামিও বটে! তার বদলে যে অংশের রোম তুলতে চান সেখানে খানিকটা কন্ডিশনার লাগিয়ে নিন, তারপর রেজর চালিয়ে তুলে ফেলুন অবাঞ্ছিত রোম। সব রোম মসৃণভাবে উঠে যাবে।

 

কিউটিকল নরম করতে

কিউটিকল নরম করতে

শীতের দিনে কিউটিকল খুব শুকনো হয়ে যায়। খানিকটা কন্ডিশনার নিয়ে কিউটিকলে কয়েক মিনিট মাসাজ করুন, তফাতটা সঙ্গে সঙ্গেই বুঝতে পারবেন। কিউটিকল নরম আর আর্দ্র রাখতে কয়েকদিন টানা এই পদ্ধতি অনুসরণ করতে পারেন।

 

মেকআপ ব্রাশ নরম করতে

মেকআপ ব্রাশ নরম করতে

মেকআপ ব্রাশ ধুয়ে শুকোনোর পর খুব অসমান আর শক্ত হয়ে যায়। এই সমস্যার সমাধানে মেকআপ ব্রাশ ধোওয়ার পর অল্প কন্ডিশনার নিয়ে ব্রাশে লাগিয়ে ধুয়ে নিন। এতে ব্রাশের আকার নিখুঁত থাকবে, নরমও থাকবে।

 

জামাকাপড় নরম করতে

জামাকাপড় নরম করতে

কন্ডিশনার লাগালে চুল যেমন নরম হয়, তেমনি জামাকাপড়ও নরম হতে পারে। ফ্যাব্রিক সফনার ফুরিয়ে গেলে তাই অনায়াসে ব্যবহার করতে পারেন কন্ডিশনার। লেস বসানো দামি অন্তর্বাস কাচার সময়ও কন্ডিশনার দিয়ে ধুয়ে নিতে পারেন, অন্তর্বাস নরম থাকবে।