প্রত্যয়ী নারীর সৌন্দর্যের তুরুপের তাসটি হল ধূমল চোখ | তাঁর সঙ্গে বাক্যালাপের আগেই দেখবেন তাঁর চোখজোড়া আপনাকে যেন  কী অমোঘ আকর্ষণে টানছে | কিন্তু এই ‘ধূমল চোখ’ বলতে কি আপনার মনে ভেসে উঠছে কালোর চেয়েও কালো, ওপরে নীচে ছায়া ছায়া অন্ধকার লেগে থাকা একজোড়া চোখ ? সব সময়েই কি ধূমল মানে কালো হতেই হবে ? আমরা কিন্তু আদৌ তা মনে করি না | আর সেইজন্যই আমরা ধূমল চোখের এক নতুন সংজ্ঞা দেব |

পাগল-করা  বর্ণময় ধূমল চোখের জন্য  বেশ কয়েক রকম রঙের  বিকল্প  এবং আমাদের দেওয়া নিশ্চিতভাবে সফল কয়েকটি উপদেশ, যা ঠিকঠাক অনুসরণ করলে  আপনার প্রসাধিত ধূমল চোখজোড়া হয়ে উঠবে অনন্য এবং এমনই দীর্ঘস্থায়ী যে সূর্যাস্ত থেকে সূর্যোদয় পর্যন্ত তার আবেদন থাকবে অক্ষুণ্ণ |
টেকিলা সানরাইজ
 

টেকিলা সানরাইজ

গোপন তথ্য :

আমাদের অভ্যেসই হয়ে গেছে আগে ফাউণ্ডেশন আর কনসীলার ব্যবহার করে তারপরে চোখের প্রসাধন করা | কিন্তু ফ্যাশন নিয়ে  আমাদের দীর্ঘদিনের অভিজ্ঞতা বলে যে বিপরীতটিই ঠিক ! অর্থাৎ, আগে চোখের প্রসাধন করুন, তারপর ফাউণ্ডেশন এবং একেবারে শেষে  কনসীলার | কারণ  আইশ্যাডো  ব্যবহারে কিছু বিচ্যুতি হয়ে থাকলে তা মেক-আপ রিমুভার দিয়ে সহজেই পরিষ্কার করে নিয়ে তারপরে ফাউণ্ডেশন লাগালে অনেক সুবিধা হয় |

ব্লু লাগুন
 

ব্লু লাগুন

গোপন তথ্য : সবসময়ে প্রাইমার আর কনসীলার ব্যবহার করুন

সবসময়ে আপনার চোখের পাতার ওপরে প্রাইমার ব্যবহার করুন | আপনি যে রং ব্যবহার করবেন , তার জন্য  এটি একটি মসৃণ ফাউণ্ডেশনের কাজ করে এবং রং দীর্ঘমেয়াদী হয় | এটির কারণেই  চোখের ভাঁজে আইশ্যাডো জমে যেতে পারে না | অনেক সময়ে দেখবেন , মনে হয় আইশ্যাডো যেন আপনার ত্বক থেকে  ধুয়ে বেরিয়ে গেছে | প্রাইমার ব্যবহার করলে তা এক সুষম আর নিরপেক্ষ ‘বেস’ তৈরি করে, ফলে এর ওপরে  রংও ধরে অনেক সহজে এবং তা হয় নজরকাড়া |

লং আইল্যান্ড আইসড টী
 

লং আইল্যান্ড আইসড টী

গোপন তথ্য : স্তর তৈরি করুন

আপনি যদি এই ছবির মেয়েটির  মতো তামাটে বাদামি রঙের ধূমল চোখ চান, তাহলে যে রঙগুলি  একই পরিবারের সদস্য , তেমন কয়েকটি শেড বেছে নিন | ফিকে আর গাঢ় বাদামি, তামাটে শেড আর একটি চিকচিকে বাদামি-ঘেঁষা শেড, যেটি দিয়ে আপনি চোখের ভেতরের কোণ আর ভ্রূ-র হাড় আলাদা করে  চিহ্নিত করবেন | সবসময়ে মনে করে পাতলা স্তরে রং লাগাবেন  এবং পরপর স্তর তৈরি করবেন, যতক্ষণ না সব মিলিয়ে চোখের প্রসাধন হয় আপনার মনের মতো | খেয়াল রাখবেন,  যদি আইশ্যাডোর কোনও একটি  স্তর বেশি পুরু হয়ে যায়, তাহলে তা থেকে রং আলগা হয়ে খসে পড়বে এবং পাউডারটি কিন্তু বেশিক্ষণ টিকেও থাকবে না |

গোল্ড রাশ
 

গোল্ড রাশ

গোপন তথ্য  : ব্রাশ বা তুলি বিষয়ে আপনার জ্ঞান নতুন করে ঝালিয়ে নিন

নিখুঁত ধূমল চোখের প্রসাধন করতে গেলে ঠিকঠাক উপকরণ প্রয়োজন | সেই কারণেই ভালো ব্রাশ বা তুলি প্রসাধনীর অন্যতম অঙ্গ | এগুলি উন্নত মানের রোম থেকে তৈরি, চোখে ব্যবহারের জন্য মানানসই কোমল এবং দীর্ঘমেয়াদী | আপনি  চোখের মেক -আপের জন্য প্রথম যখন জিনিসপত্র কিনবেন, তখন একটি আইশ্যাডো ব্রাশ, একটি ব্লেন্ডার ব্রাশ, একটি ছোট রাউন্ড-টিপ হাইলাইটার ব্রাশ আর একটি শেডিং ব্রাশ কিনে নেবেন |

মার্গারিটা
 

মার্গারিটা

গোপন তথ্য :  ভালো করে  মিশিয়ে নিন আর তারপর আরও খানিক ভালো করে |

আপনি যদি এই ছবির মেয়েটির মতো ধূসর-রুপোলি ধূমল চোখ পছন্দ হয়, তাহলে রঙের মিশেল খুব ভালোভাবে হওয়া জরুরী | আমরা যে কথা আগেও বলেছি, একই পরিবারের  সদস্য, এমন কিছু বিশেষ রং বেছে নিন | ফিকে আর গাঢ় ধূসর  আর  হাইলাইট করার জন্য রুপোলি | এবার আপনার কাছে ব্রাশ তো রয়েইছে,  এমনভাবে রং মেশান যাতে কোনও রঙের রেখা আলাদাভাবে না প্রকট হয়ে ওঠে | যেন মনে হয় একটি রং অনায়াসে অন্যটির সঙ্গে আপনা থেকেই মিশে গেছে | রং মিশিয়ে দিতে ব্রাশে  ছোট ছোট  বৃত্তীয় টান দিন আর চোখের যে অংশে ভাঁজ পড়ে, সেখানে দিন গাড়ির সামনের কাচে যেমন উইন্ড-শিল্ড ওয়াইপার কাজ করে, ঠিক তেমন ধাঁচের টান |

এর অর্থ হল, চোখের ভাঁজের এক প্রান্তে একটি মোলায়েম ফুলো ফুলো সুচালো ব্রাশ ধরে সেটিকে একপাশ থেকে অন্য পাশে টানছেন |  অর্থাৎ ভাঁজ বরাবর এই যে টান দিচ্ছেন, সেই সময়ে  চোখের পাতা থেকে কিন্তু ব্রাশটি তুলে নিচ্ছেন না |