চাকরির জন্য যেদিন ইন্টারভিউ দিতে যাচ্ছেন, আপনার মাথায় সেদিন কখনওই কিন্তু থাকবে না কীরকমভাবে মেকআপ করলে আপনার ব্যক্তিত্বে নিয়োগকর্তারা সন্তুষ্ট হবেন। তবে সবচেয়ে ভালো হয় যদি আপনি নিউট্রাল শেড আর সূক্ষ্ম হালকা মেকআপ ব্যবহার করেন।
 
প্রথমে আপনাকে দেখে যেমন ধারণা হবে, সেই ধারণাটিই কিন্তু সকলের মনে দীর্ঘস্থায়ী হবে আর আপনি যদি এমন সাজপোশাক ব্যবহার করেন, যাতে আপনাকে সবচেয়ে সুন্দরী দেখায়, তা হলে দেখবেন আপনা থেকেই আপনার মনে এমন এক ধরনের আত্মবিশ্বাস তৈরি হয়ে যাবে যে আপনার ইন্টারভিউ ভালো হতে বাধ্য! আমরা আপনাকে একটি তালিকা দিচ্ছি, যেটি ইন্টারভিউতে যাওয়ার জন্য সাজগোজ করার সময়ে মনে রাখতে চেষ্টা করবেন, যাতে পুরোপুরি আত্মবিশ্বাসী হয়ে ইন্টারভিউ দিতে ঘরে ঢুকতে পারেন আর বেরোনোর সময়ে আপনার হাতে থাকে চাকরির নিয়োগপত্র।
 

ফাউন্ডেশন

ফাউন্ডেশন

সাধারণ C-T-M, অর্থাৎ স্কিন ক্লিনজিং-টোনিং–ময়েশ্চারাইজ়িং করার পরের প্রথম ধাপটি হল ফাউন্ডেশন। এটি লাগাতে হবে খুব আলতো হাতে, এমনভাবে যাতে ছোপছোপ না দেখায় বা আপনি যদি ঘাবড়ে গিয়ে ঘামতে শুরু করেন, গলে তরল হয়ে না যায়।

 

কারেক্টর বা কনসিলার

কারেক্টর বা কনসিলার

কনসিলার আপনার সবচেয়ে কাছের বন্ধু। চোখের আশপাশের দাগছোপ, ক্লান্তি বা ডার্ক সার্কল এই কনসিলার দিয়ে ঢেকে দিন। চোখের আশপাশে যেখানে যেখানে অবাঞ্ছিত দাগ দেখবেন, সেখানে সেখানে এটি লাগান আর আলতোভাবে চেপে চেপে এটি ত্বকের গভীরে মিশিয়ে দিন, যাতে সমানভাবে ত্বকের রঙের সঙ্গে মিশ খেয়ে যায়। তারপর এর উপরে পাউডার ব্যবহার করে এটিকে স্থায়ী রাখার ব্যবস্থা করুন।


 

 

ব্লাশ

ব্লাশ

ব্লাশ ব্যবহার করতে ভুলবেন না। কারণ এই ব্লাশ তাৎক্ষণিকভাবে আপনার ত্বকে আনে স্বাস্থ্যকর ঝলমলে রূপ আর আপনার চেহারাকে করে তোলে উজ্জ্বল আর তরতাজা। এমন একটি রং বেছে নিন, যা আপনার গাল লালচে হয়ে উঠলে তার রঙের সঙ্গে মিশে যায়, কারণ জানবেন সেই রঙটিই আপনার ত্বকের পক্ষে নিশ্চিতভাবে সবচেয়ে বেশি মানানসই। ব্লাশ লাগানোর আগে হাসুন, এবার ব্লাশটির ব্রাশটিকে টানুন গালের ফুলো অংশ বরাবর বাইরের এবং উপরের দিকে, আপনার চুলের প্রান্তরেখা যেদিকে আছে।

 

আইলাইনার

আইলাইনার

আইলাইনার আপনার চোখের সৌন্দর্যকে করে তোলে অনন্য। চোখ দেখে আপনার পেশাগত দক্ষতা সম্বন্ধে যাতে নিয়োগকর্তারা নিশ্চিন্ত হতে পারেন, সে কথা মাথায় রেখে ব্যবহার করুন গাঢ় বাদামি বা কাঠকয়লার মতো কালো পেন্সিল আইলাইনার এবং আপনার চোখের উপরের আর নিচের পাতা আঁকুন পুরু করে। তারপর ব্রাশ ব্যবহার করে সামান্য স্মাজ করে দিন, যাতে চোখের মেকআপ খুব প্রকট না লাগে। যদি তরল আইলাইনার ব্যবহারে স্বচ্ছন্দ থাকেন, তা হলেও সাবধানে লাগান, কারণ হাত এদিক ওদিক নড়ে গিয়ে মেকআপ নষ্ট হলে আবার তা ঠিকঠাক করতে অকারণে সময়ের অপচয় হবে। নিউট্রাল রঙের আইশ্যাডো ইন্টারভিউয়ের জন্য সবচেয়ে উপযোগী।

 

লিপস্টিক

লিপস্টিক

সবচেয়ে শেষ কিন্তু সবচেয়ে দরকারি জিনিসটি কিন্তু লিপস্টিক। লিপস্টিক আপনার চেহারায় মেকআপের পরে শেষ মাত্রাটি যোগ করে। ইন্টারভিউয়ের পক্ষে একেবারে উপযুক্ত প্রসাধনী হল নিউট্রাল রঙের লিপস্টিক, যাতে সামান্য গোলাপি, বাদামি বা প্রবাল-লাল রঙের ছোঁয়া রয়েছে। ঠোঁটের ঠিকঠাক সৌন্দর্য আনার জন্য আগে লিপলাইনার ব্যবহার করে তারপর লিপস্টিক লাগান। দেখে নিন, দাঁতে কোথাও লিপস্টিক লেগে যায়নি তো? এবার আপনি পুরোপুরি প্রস্তুত ইন্টারভিউ বোর্ডের মোকাবিলা করতে।

মাসকারা

মাসকারা আপনার চোখকে বড় আর মোহময় দেখাতে সাহায্য করে | ল্যাশ কার্লার ব্যবহার করে আপনার চোখের পাতায় ঢেউ তুলুন আর উপরের পাতায় মাসকারার দুটি বা তিনটি প্রলেপ দিন। নিচের পাতাকেও অবহেলা করবেন না। হালকা হাতে নিচের পাতাতেও দিন সামান্য মাসকারার প্রলেপ |