কল্পনা করে দেখুন: নিজের প্রিয়তম মানুষটির দিকে পায়ে পায়ে এগিয়ে যাচ্ছেন আপনি, আর কাঁধের ওপরে পড়ে থাকা আপনার একঢাল নরম ঝলমলে চুল হালকা বাতাসে উড়ছে! এরকম একটা স্বপ্নদৃশ্য বাস্তবে ঘটার অপেক্ষায় বসে থাকি আমরা সবাই! সত্যি সত্যি এমন মুহূর্ত বাস্তবে আসবে কিনা জানা না থাকলেও চুলের ব্যাপারটা কিন্তু সত্যি হতেই পারে! মানে একটু চেষ্টা করলেই শ্যাম্পুর বিজ্ঞাপনের মতো চুল পেতে পারেন আপনি, আর তার জন্য আপনার দরকার শুধু কন্ডিশনার। হ্যাঁ, শুধু একটা কন্ডিশনারের বোতলই ভোল বদলে দিতে পারে আপনার চুলের। চুল আর্দ্র মসৃণ আর সিল্কি রাখা ছাড়াও কন্ডিশনার আরও নানাভাবে চুলের উপকার করে। রইল কন্ডিশনার ব্যবহারের পাঁচটি দুর্দান্ত কৌশল, প্রয়োগ করে দেখুন!

 

01. কন্ডিশন করুন শ্যাম্পুর আগে

01. কন্ডিশন করুন শ্যাম্পুর আগে

আপনার চুল যদি পাতলা হয়, তা হলে এভাবে কন্ডিশনার ব্যবহার করে দেখুন! পরেরবার শ্যাম্পু করার আগে কন্ডিশনার লাগান। চুলের মাঝামাঝি অংশ থেকে শেষ প্রান্ত পর্যন্ত লাগাবেন। তারপর কন্ডিশনার না ধুয়েই তার ওপর দিয়ে শ্যাম্পু লাগিয়ে নিন, অবশেষে সব কিছু একসঙ্গে ধুয়ে ফেলুন। এভাবে লাগালে কন্ডিশনার চুলের প্রাইমার হিসেবে কাজ করে এবং শ্যাম্পু দ্রুত সমানভাবে সারা চুলে ছড়িয়ে যায়, পাশাপাশি চুলের স্বাভাবিক তেলের আস্তরণ নষ্ট হয় না। ফলাফল? নরম ঘন চুল! চুলের সঙ্গে এভাবে নতুন করে বন্ধুত্ব হলে ভালো লাগে না বলুন? বিশেষ টিপ: সবচেয়ে ভালো ফল পেতে এই পদ্ধতিটি সপ্তাহে একদিন প্রয়োগ করুন।

 

02. কন্ডিশনার ব্যবহার করুন হেয়ার মাস্ক হিসেবে

02. কন্ডিশনার ব্যবহার করুন হেয়ার মাস্ক হিসেবে

পছন্দের মাস্ক শেষ হয়ে গেছে? মুশকিল আসান করবে হেয়ার কন্ডিশনার। ডিপ কন্ডিশনিং হেয়ার মাস্ক হিসেবে ব্যবহার করুন আপনার কন্ডিশনারটিকে। বেছে নিন ডাভ ইনটেন্স রিপেয়ার হেয়ার কন্ডিশনার উইথ ময়শ্চার লক টেকনোলজি/ Dove Intense Repair Hair Conditioner with Moisture Lock Technology আর সদ্য শ্যাম্পু করা চুলে লাগিয়ে নিন। 45-60 মিনিট রেখে ঠান্ডা জলে ধুয়ে ফেলুন। চুল হয়ে উঠবে মসৃণ চকচকে!

 

03. চুলের জট ছাড়ান, রুক্ষতা কমান সহজে

03. চুলের জট ছাড়ান, রুক্ষতা কমান সহজে

কন্ডিশনার লাগানোর পর চিরুনি দিয়ে চুল আঁচড়ে নিলে একদিকে যেমন কন্ডিশনার ভালোভাবে কাজ করতে পারে, তেমনি চুলের জট ছাড়িয়ে রুক্ষতা কমানোও সহজ হয়। তা ছাড়া এর ফলে চুল ভাঙে ঝরে কম। দারুণ, না? যেদিন শ্যাম্পু না করেই চুলের জট ছাড়াতে চাইবেন, সেদিন এক গেলাস জলে খানিকটা কন্ডিশনার মিশিয়ে নিয়ে চুলে স্প্রে করে নিন, তারপর চুল আঁচড়ান বা ব্রাশ করুন। চুলের জট ছাড়াতে পারবেন ঝটপট, বিনা বাধায় - একদম স্বপ্নের মতো!

 

04. মেকআপ ব্রাশ নরম রাখুন

04. মেকআপ ব্রাশ নরম রাখুন

হ্যাঁ, শুধু কন্ডিশনার দিয়েই আপনার প্রিয় মেকআপ ব্রাশগুলোকে নতুনের মতো নরম রাখতে পারেন! মেকআপ ব্রাশ ধোওয়ার পর খানিকটা কন্ডিশনার ব্রিসলগুলোর ওপরে মাখিয়ে দিন। এতে ব্রাশের শেপ ফিরে আসবে, নরমও থাকবে! ব্যস! নতুনের মতো মেকআপ ব্রাশ পাওয়া এখন স্রেফ সময়ের অপেক্ষা!

 

05. শেভিং ক্রিম হিসেবে ব্যবহার করুন

05. শেভিং ক্রিম হিসেবে ব্যবহার করুন

ড্রাই শেভিং করা চলবে না কোনওমতেই! কিন্তু যদি শেভিং ক্রিম শেষ হয়ে গিয়ে থাকে, তখন? সেরকম হলে বেছে নিন কন্ডিশনার। শেভিং ক্রিমের বদলে কন্ডিশনার ব্যবহার করলে পা আর্দ্রতা পাবে, পাশাপাশি ক্ষুরও চালাতে পারবেন মসৃণভাবে। ত্বক থাকবে তুলতুলে নরম আর পায়ে কাঁটা কাঁটা স্ট্রবেরি লেগস হওয়া নিয়েও আর ভয় থাকবে না - আর কী চাই বলুন?