যত্ন করে মেকআপ করেন খেটেখুটে, অথচ শেষ পর্যন্ত ব্যাপারটা মোটেও দাঁড়ায় না? হাজার চেষ্টা করলেও মেকআপ ছোপছোপ, পুরু অসমান হয়ে থাকে? মেকআপ যাতে পুরু আর অসমান না হয়, তার জন্য বেশ কিছু কৌশল আছে ঠিকই, কিন্তু সে সব আগে মেনে তবে মেকআপ করতে হয়। কিন্তু মেকআপ শেষ করার পর যদি দেখেন কেকের মতো মুখে জমে আছে, তা হলে কী করবেন? মুখ ধুয়ে আবার গোড়া থেকে শুরু করা মানে অনেকটা সময় নষ্ট। তার চেয়ে বরং জেনে নিন কীভাবে ঠিক করে নেবেন এই সমস্যা। রইল পাঁচটি সহজ সমাধান।

 

ব্লেন্ড করতে থাকুন

ব্লেন্ড করতে থাকুন

সবচেয়ে ভালো উপায় এটাই। জমে থাকা ফাউন্ডেশন ছোট ছোট চক্রাকার স্ট্রোকে ব্লেন্ড করতে থাকুন। যদি মনে হয় মুখে বেশি ফাউন্ডেশন লাগিয়ে ফেলেছেন, ব্রাশ দিয়ে বিশেষ কিছু করা যাচ্ছে না, তা হলে পরিষ্কার টিস্যুতে ব্রাশ মুছে নিয়ে ফের ব্লেন্ডিং করতে থাকুন। এর ফলে অতিরিক্ত ফাউন্ডেশন, যা এতক্ষণ ত্বকে জমে ছিল, তা উঠে যাবে। ভেজা ব্রাশ দিয়ে ব্লেন্ড করলে অনেক সময় ফাউন্ডেশনের পরতে ব্রাশের দাগ থেকে যায়, ব্রাশ মুছে নিলে সেই ভয় থাকবে না। ঘন ফাউন্ডেশন ব্রাশও ব্যবহার করতে পারেন, তাতে একটু সুবিধে হবে।
 

 

ব্লটিং পেপার ব্যবহার করুন

ব্লটিং পেপার ব্যবহার করুন

টিস্যু পেপার বা ব্লটিং পেপার দিয়ে তেলতেলেভাব মুছে নিন, তারপর ভেজা বিউটি স্পঞ্জ দিয়ে বেসটা ব্লেন্ড করুন।  ফোটো তোলার সময় অভিনেতারা যখন চড়া আলোয় ঘেমে যান, তখন সেলিব্রিটি মেকআপ আর্টিস্টরা এই কৌশলটা প্রয়োগ করেন। আপনার ত্বক তেলতেল হলে বা মেকআপ করার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে ছোপছোপ হয়ে মুখে জমে গেলে এই কৌশলটা কাজে লাগবে। ব্লটিং পেপার দিয়ে তেলাভাব শুষে নিয়ে ফের একবার ব্লেন্ড করে নিন। ইচ্ছে করলে আরও ভালো ব্লেন্ড করার জন্য একটু সেটিং স্প্রে লাগিয়ে নিতে পারেন।

 

বিউটি স্পঞ্জ ব্যবহার করুন

বিউটি স্পঞ্জ ব্যবহার করুন

ভেজা বিউটি স্পঞ্জ দিয়ে ত্বক থেকে বাড়তি ফাউন্ডেশন তুলে দিন। তার জন্য স্পঞ্জটা ত্বকের ওপর ব্লেন্ড করার মতো করেই হালকা চাপুন। ন্যাচারাল ফিনিশ পেতে বিউটি স্পঞ্জ খুব কাজের। স্পঞ্জে সেটিং স্প্রে লাগিয়ে নিয়েও ত্বকে ড্যাব করতে পারেন। সেটিং স্প্রে লাগালে মসৃণভাবে ব্লেন্ড করতে সুবিধে হবে। বিউটি স্পঞ্জ যেন শুকনো না থাকে, কারণ এই বস্তুটি ভেজা অবস্থায় ব্যবহারের জন্যই তৈরি।
 

 

সেটিং স্প্রে লাগান

সেটিং স্প্রে লাগান

আরও একবার সেটিং স্প্রে-র গুণগান করতেই হচ্ছে। আপনার মেকআপ খুব শুকনো আর পুরু দেখালে সারা মুখে সেটিং স্প্রে লাগিয়ে নিন। হাইড্রেটিং বা ময়শ্চারাইজিং স্প্রে লাগালে শুষ্কতা কমবে। পুরু ছোপছোপ মেকআপ সারাতে ন্যাচারাল ফিনিশ বা ডিউয়ি ফিনিশের সেটিং স্প্রে সবচেয়ে ভালো কাজ করে।

 

নতুন করে ময়শ্চারাইজার লাগান

নতুন করে ময়শ্চারাইজার লাগান

এই কৌশলটা প্রয়োগ করা একটু শক্ত হলেও দারুণ ভালো কাজ করে! মুখ ধুয়ে নতুন করে মেকআপ শুরু করাই যায়, কিন্তু তাতে আবার অনেকটা সময় নষ্ট হয়ে যায়। এই কৌশলটি চোখের নিচের মেকআপ ঠিক করতে বিশেষভাবে কাজ করে। প্রথমে তেলতেলে ত্বক হলে ব্লটিং পেপার দিয়ে ত্বকের বাড়তি তেলাভাব শুষে নিন। এর পর আপনার দরকার হবে কনসিলার বাফিং ব্রাশ, পছন্দের প্রাইমার আর ময়শ্চারাইজার। ব্রাশে কিছুটা ময়শ্চারাইজার নিয়ে চোখের নিচের অংশে আলতোভাবে লাগান। এতে ত্বকে পুষ্টি ফিরে আসবে। তারপর অল্প প্রাইমার আর ফাউন্ডেশন মিশিয়ে জায়গাটায় লাগান। ঘষবেন না, শুধু চেপে লাগিয়ে নিন। মসৃণভাবে লাগানো হয়ে গেলে হালকা করে পাউডার ডাস্ট করে দিন। মেকআপ করা ত্বকেও এই কৌশলটি প্রয়োগ করা যায়।