মেকআপ বিশেষজ্ঞই বলুন বা আর সৌন্দর্য আর রূপচর্চা বিষয়ক ব্লগার, প্রাইমারের গুণগান গাইতে গিয়ে কারও ক্লান্তি আসে না। তা সত্ত্বেও কিন্তু মেকআপের যাবতীয় প্রডাক্টের মধ্যে প্রাইমার নিয়ে প্রচুর রহস্য আছে। ত্রুটিহীন এবং দীর্ঘস্থায়ী মেকআপের জন্য প্রাইমার অত্যন্ত প্রয়োজনীয় আর অপরিহার্য এ কথা সবাই জানেন, তবুও তার ঠিকঠাক বাছাই আর ব্যবহার নিয়ে এখনও কিন্তু যথেষ্ট সংশয় রয়ে গেছে|

তাহলে প্রাইমার ব্যবহারের সেরা উপায়টি কী? রূপচর্চার ঠিক কোন ধাপে এটি লাগানো উচিত? যদি প্রায়ই প্রাইমারের ব্যবহার নিয়ে চিন্তাভাবনা করেন, তাহলে এই লেখাটি পড়ে ফেলা একান্ত আবশ্যক| আমরা আপনাকে জানিয়ে দিচ্ছি প্রাইমার সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য|  পড়তে থাকুন ...

সবচেয়ে প্রথম কথা, প্রাইমারের কাজটা আসলে কী?
 

সবচেয়ে প্রথম কথা, প্রাইমারের কাজটা আসলে কী?

সহজ ভাষায় বলতে গেলে, প্রাইমিং হল মেকআপের সবচেয়ে প্রাথমিক ধাপ, মেকআপের জন্য তা আপনার ত্বককে প্রস্তুত করে তোলে| প্রাইমার আপনার ত্বক আর মেকআপের মাঝখানে একটি স্তরের কাজ করে, আর নিশ্চয়তা দেয় যে আপনার মেকআপ দীর্ঘস্থায়ী হবে| আপনার প্রাইমার কিন্তু মেকআপের আগে শুধু ত্বকের প্রাথমিক প্রস্তুতিতে সহায়তা করা ছাড়াও আরও অনেক কিছুই করতে পারে| ঠিকঠাক প্রাইমার বেছে নিলে তা আপনার ত্বকে প্রয়োজনীয় আর্দ্রতা সরবরাহ করে, মুখের ছিদ্রগুলি আবছা করে দেয়, সূক্ষ্ম বলিরেখা ঢেকে দেয় আর আপনার মেকআপকে সুরক্ষিত করে, উজ্জ্বল করে বা প্রয়োজনে ‘ম্যাট ফিনিশ’ আনতে সাহায্য করে|

কিন্তু... আপনার ত্বকের জন্য কোন প্রাইমার আদর্শ?
 

কিন্তু... আপনার ত্বকের জন্য কোন প্রাইমার আদর্শ?

ত্বকের ছিদ্রগুলিকে আবছা দেখানো আর ম্যাট ফিনিশের প্রয়োজন? তাহলে আপনার চাই ল্যাকমে অ্যাবসোলিউট ব্লার পারফেক্ট মেকআপ প্রাইমার| টিন্টেড প্রাইমার আবার একইসঙ্গে কালার প্রোটেক্টরেরও কাজ করে| ত্বককে রোদের হাত থেকে বাঁচাতে চান এবং সেই সঙ্গে চান মসৃণ করে তুলতে? অথবা এমন ত্বক পেতে চান যে মনে হবে সদ্য শিশিরে মুখ ধুয়েছেন আর তা ভিতর থেকে ঝলমল করছে? তাহলে বেছে নিন ডার্মালজিকা স্কিনপারফেক্ট প্রাইমার এসপিএফ 30 (SPF 30)| যাঁরা চোখের মেকআপের ব্যাপারে খুঁতখুঁতে, তাঁরা হাতের কাছে রাখুন আই প্রাইমার| আই প্রাইমারের ব্যবহার করলে আপনার আইশ্যাডোতে ভাঁজ দেখা দেবে না আর তা দীর্ঘস্থায়ীও হবে|

ঠিক কখন আর কোথায় আপনি এটি ব্যবহার করবেন?
 

ঠিক কখন আর কোথায় আপনি এটি ব্যবহার করবেন?

প্রাইমারের ব্যবহার হল মেকআপের ক্ষেত্রে একেবারে গোড়ার ধাপ| তাই ত্বক ঠিকঠাক ময়েশ্চরাইজ় করার পরে আর মেকআপের জিনিসপত্র ব্যবহার করে সাজগোজ শুরু করার আগে এটি লাগান| নিখুঁত আর সুষম ফিনিশিংয়ের জন্য প্রাথমিক মেকআপের আগেই মুখ আর ঘাড়ের জন্য ফেস প্রাইমার ব্যবহার করুন| চোখের মেকআপ করার আগে চোখের উপরের আর নিচের ত্বকেও থুপে থুপে প্রাইমার লাগিয়ে নিন| চোখের পাতায় মাসকারা লাগানোর আগেও প্রাইমার লাগিয়ে নিতে পারেন, দেখবেন চোখ আরও আবেদনময় হয়ে উঠবে|

কীভাবে ব্যবহার করবেন আর সেরা ফলই বা মিলবে কীভাবে?
 

কীভাবে ব্যবহার করবেন আর সেরা ফলই বা মিলবে কীভাবে?

মটরশুঁটির দানার মাপে প্রাইমার নিয়ে তা স্পঞ্জ, আঙুল বা ব্রাশের সাহায্যে বাইরের দিকে টেনে টেনে ভালোভাবে ত্বকে মিশিয়ে দিন| এবার শুকোনোর জন্য কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন| সাধারণত মিনিটখানেক লাগে| এবার বাকি মেকআপ শুরু করতে আপনি প্রস্তুত!