সাজগোজ করতে, মেকআপ করতে ভালোবাসেন, অথচ প্রাইমার ব্যবহার করেন না, এমন হলে কিন্তু বলতে হবে আপনার মেকআপ পদ্ধতিতেই বড়সড় গলতি থেকে গেছে! কারণ প্রাইমার ছাড়া মেকআপ ভাবাই যায় না! মেকআপ দীর্ঘস্থায়ী করা থেকে শুরু করে মুখের রোমছিদ্রের আয়তন কমিয়ে তা ঢেকে দেওয়া পর্যন্ত, নানা কাজ প্রাইমার করে যা আপনার সৌন্দর্যের জন্য অপরিহার্য। শুধু তাই নয়, প্রাইমার আরও কী করে জানেন? আপনার ত্বকে একটা বাড়তি স্বাস্থ্যের জেল্লা এনে দেয় যাতে আপনি হয়ে ওঠেন আরও ঝলমলে!

নিশ্চয়ই ভাবছেন, কী করে এত কিছু করে প্রাইমার? আসলে বেশিরভাগ প্রাইমারের মধ্যেই ত্বক পরিচর্যার কিছু গুণ থাকে যা ত্বককে সুস্থ রাখে, সারিয়ে তোলে। সে জন্যই ময়শ্চারাইজার, স্কিন সিরামের মতো রোজকার স্কিনকেয়ার প্রডাক্টের ওপর সরাসরি লাগালেও প্রাইমার আপনার ত্বককে পরিবেশের ধুলোধোঁয়া দূষণজনিত ক্ষতির হাত থেকে ত্বককে রক্ষা করে এবং ত্বককে ঝলমলে সতেজ রাখে। আশ্চর্য এই প্রডাক্টটির ব্যাপারে আরও জানতে ইচ্ছে করছে, তাই তো? তা হলে পড়তে থাকুন!

 

ত্বকের স্বাভাবিক জেল্লা বাড়িয়ে তোলে

ত্বকের স্বাভাবিক জেল্লা বাড়িয়ে তোলে

আপনার ত্বক কি সাধারণত ম্যাড়মেড়ে জৌলুসহীন দেখায়? তা হলে বেছে নিন এমন প্রাইমার যাতে ত্বকের জেল্লা বাড়ানোর উপাদান রয়েছে। ইলুমিনেটিং পার্টিকল যুক্ত প্রাইমার আপনার ত্বকে নিমেষে দীপ্তি ফিরিয়ে আনে কোনও ফাউন্ডেশন ছাড়াই। আমাদের পছন্দ ল্যাকমে অ্যাবসলিউট ব্লার পারফেক্ট প্রাইমার / Lakmé Absolute Blur Perfect Primer। খুব হালকা টেক্সচারের কারণে এটি আপনার ত্বকে এনে দেয় উজ্জ্বলতা। তা ছাড়া এই প্রাইমারে ভিটামিন ই থাকায় আপনার ত্বকের দীপ্তি সহজেই সবার নজর কেড়ে নেবে। অল্প একটুখানি প্রাইমার মুখে মেখে নিন, আর চিরতরে বিদায় জানান বিবর্ণ, ক্লান্ত, অসমান স্কিন টোনকে।

 

তেলাভাব নিয়ন্ত্রণ করে

তেলাভাব নিয়ন্ত্রণ করে

প্রাইমার ব্যবহার করার আর একটি দুর্দান্ত কারণ হল প্রাইমারের মধ্যে ত্বকের তেলাভাব নিয়ন্ত্রণ করার গুণ রয়েছে এবং সেজন্য তেলতেলে ত্বকের অধিকারিণীদের কাছে এটি আশীর্বাদের মতো! মটরদানার পরিমাণ প্রাইমার লাগিয়ে নিলেই ত্বকের সেবাম উৎপাদন নিয়ন্ত্রণে থাকবে এবং আপনার মুখ দেখাবে তেলবিহীন ঝলমলে, সারা দিনভর!

 

ত্বকে আর্দ্রতা জোগান দেয়

ত্বকে আর্দ্রতা জোগান দেয়

নিয়ম করে রোজ ময়শ্চারাইজার মাখেন নিশ্চয়ই! আমাদের বলতে খারাপ লাগছে, কিন্তু সত্যি কথাটা হল মাঝেমাঝে শুধু ময়শ্চারাইজার মাখাটাই যথেষ্ট নয়! প্রাইমার মাখলে তা আর্দ্রতাকে ত্বকের গভীরে ধরে রাখে এবং মেকআপ লাগানো ত্বকে সারাদিন ধরে যে আর্দ্রতা দরকার হয়, তা জোগান দেয়। মুখের বলিরেখা আর সূক্ষ্মরেখাগুলো টানটান করে মুখ মসৃণ করে তুলতেও সাহায্য করে প্রাইমার।

 

ত্বকের রং সমান করে তোলে

ত্বকের রং সমান করে তোলে

বেশিরভাগ প্রাইমারেই একটা হালকা রং থাকে, যা আপনার মুখের স্বাভাবিক রংকে আরও সমান আর মসৃণ করে তোলে। নিশ্চয়ই ভাবছেন, কীভাবে? আসলে আপনার মুখে যে সব দাগছোপ রয়েছে তার রংটাকে প্রাইমার হালকা করে দেয়, ফলে আর কোনও মেকআপ না লাগালেও আপনার ত্বক নিখুঁত দাগহীন দেখায়। যে সব মেয়ে নিজেদের মেকআপ হালকা এবং ত্বকের শ্বাস নেওয়ার ক্ষমতা ধরে রাখতে চান, তাঁদের জন্য প্রাইমার খুবই উপযুক্ত। এই প্রাইমারের কভারেজ খুব হালকা, কিন্তু তাতেও ত্বকের রং মসৃণ আর টেক্সচার নিখুঁত করে তুলতে পারে এটি।

 

ত্বকের খুঁত ঢেকে দেয়

ত্বকের খুঁত ঢেকে দেয়

প্রতিদিন ফাউন্ডেশন লাগানো একটা ঝামেলার কাজ। শুধু তাই নয়, ফাউন্ডেশন লাগালে মুখের ফিনিশিংটা একটু পুরু আর কৃত্রিম মনে হয়। অথচ প্রাইমার ব্যবহার করেই এই সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়া সম্ভব। চোখের কোলের কালি থেকে শুরু করে দাগ, খোলা রোমছিদ্র এমনকী ফুসকুড়ি বা ব্রণর দাগ, আপনার সমস্যা যাই হোক না কেন তা সমাধান করতে পারে প্রাইমার।

 

কীভাবে ব্যবহার করবেন

কীভাবে ব্যবহার করবেন

নিখুঁত তকতকে ত্বক পেতে প্রাইমার কীভাবে ব্যবহার করবেন ভাবছেন? প্রথমেই মুখ ভালো করে পরিষ্কার করে টোন করে নিন। তারপর পর্যাপ্ত পরিমাণ ময়শ্চারাইজার নিয়ে সারা মুখে ভালোভাবে লাগান। অন্তত এক মিনিট সময় দিতে হবে যাতে ময়শ্চারাইজার ভালোভাবে ত্বকের গভীরে বসে যায়। এর পর মটরদানার পরিমাণ ল্যাকমে অ্যাবসলিউট ব্লার পারফেক্ট প্রাইমার নিন এবং মুখে লাগিয়ে বাইরের দিকে স্ট্রোকে হাত চালিয়ে ভালো করে ত্বকের সঙ্গে ব্লেন্ড করে দিন। মিনিটখানেক অপেক্ষা করুন যাতে প্রাইমার বসে যায়, আর ব্যস; আপনি একদম তৈরি।