কোঁকড়া চুলে সঠিক কন্ডিশনার ব্যবহারের 5টি উপকারিতা

Written by Manisha DasguptaNov 30, 2023
কোঁকড়া চুলে সঠিক কন্ডিশনার ব্যবহারের 5টি উপকারিতা

কোঁকড়ানো চুল সুন্দর করে সাজিয়ে গুছিয়ে রাখাটা সত্যিই একটা কঠিন কাজ! আমরা জানি সেটা! স্ট্রেট চুলের চেয়ে কোঁকড়ানো অর্থাৎ কার্লি চুলের শুষ্কতা অনেক বেশি, যা থেকে দেখা দেয় রুক্ষভাব, ভেঙেঝরে যাওয়া, নিষ্প্রাণভাব। সব মিলিয়ে কোঁকড়া চুল একদিকে যেমন সামলানো মুশকিল, তেমনি তাতে বাউন্স আর শাইনও কমে যায়। তবে চিন্তার কারণ নেই। কারণ কোঁকড়া চুলের হাল ফেরাতে আপনার দরকার মাত্র একটি জরুরি হেয়ার কেয়ার প্রডাক্ট।

আন্দাজ করেছেন কি, কোন প্রডাক্ট? হ্যাঁ, কন্ডিশনারের কথাই বলছি আমরা। আর্দ্রতার গুণে ভরপুর কন্ডিশনারেই লুকিয়ে আছে আপনার কোঁকড়া চুলের সব সমস্যার সমাধান। কোঁকড়া চুলে কন্ডিশনার ব্যবহারের পাঁচটি দারুণ উপকারিতার কথা জেনে নিন চট করে...

 

01. চুলের জট ছাড়ানো সহজ হয়

05. আঁচড়ানোর সময় চুল ওঠে কম

এমনিতেই চুলের জট ছাড়ানো ঝামেলার কাজ, তার ওপর কোঁকড়া চুল হলে তো কথাই নেই! কোঁকড়া চুলের জট ছাড়াতে সময় লাগে, পাশাপাশি চুল উঠেও যায় প্রচুর। কন্ডিশনার ব্যবহার করলে চুলে আর্দ্রতা বজায় থাকে, ফলে জট ছাড়ানো সহজ হয়ে যায়। চুলে আর্দ্রতা থাকলে চুল দেখতে আর হাত দিয়ে ছুঁতেও নরম লাগে। চুলের লেংথ বরাবর পর্যাপ্ত কন্ডিশনার লাগিয়ে নিন, তারপর মোটা দাঁড়ার চিরুনি দিয়ে আঁচড়ে সহজেই জট ছাড়িয়ে ফেলুন। চুল উঠেও যাবে না, ব্যথাও লাগবে না।

বিবি-র পছন্দ: ট্রেসমে সালফেট ফ্রি প্রো প্রোটেক্ট কন্ডিশনার/ Tresemme Sulphate Free Pro Protect Conditioner

 

02. শুষ্কতা কমায়

05. আঁচড়ানোর সময় চুল ওঠে কম

কোঁকড়া চুল প্রকৃতিগতভাবেই শুষ্ক, কারণ স্ক্যাল্পে যে সেবাম তৈরি হয় তা কোঁকড়ানো আর প্যাঁচানো চুলের শেষ প্রান্ত পর্যন্ত পৌঁছোতে পারে না। তাই চুল যাতে তার প্রয়োজনীয় আর্দ্রতা পায়, তার জন্য বাইরে থেকে চুলে ময়শ্চারাইজার জোগানো দরকার। কোঁকড়া চুলে কন্ডিশনার ব্যবহারের সবচেয়ে বড় উপকারিতা এটাই! কন্ডিশনার চুলে আর্দ্রতা জোগাত, চুলের গভীরে সে আর্দ্রতা ধরে রাখে, ক্ষয়ক্ষতি মেরামত করে এবং পরিবেশের ক্ষতিকর উপাদানের হামলা রুখে দিয়ে কোঁকড়া চুল রাখে নরম আর বাউন্সি।

 

03. চুল সামলানো আর স্টাইল করা সহজ হয়

05. আঁচড়ানোর সময় চুল ওঠে কম

মোটা, কর্কশ টেক্সচারের জন্য কোঁকড়া চুল স্টাইল করা কঠিন। তবে নিয়মিত কন্ডিশনার ব্যবহার করলে এই সমস্যার সমাধান সম্ভব। কন্ডিশনার চুলে আর্দ্রতা জোগায়, পাশাপাশি খোলা কিউটিকল বন্ধ করে দেয় যাতে আর্দ্রতা চুলের গভীরেই থেকে যেতে পারে। ফলে চুল হয়ে ওঠে নরম, চকচকে। চুলের নমনীয়তাও বাড়ে, কাজেই স্টাইল করা আর চুল সামলানো, দুইই সহজ হয়ে যায়।

বিবি-র পছন্দ: ট্রেসমে কেরাটিন স্মুদ কন্ডিশনার/ Tresemme Keratin Smooth Conditioner

 

04. চুলের রুক্ষ উড়োভাব আটকায়

05. আঁচড়ানোর সময় চুল ওঠে কম

যেহেতু স্ক্যাল্পের প্রাকৃতিক তেল কোঁকড়া চুলের গোড়া থেকে আগা পর্যন্ত পৌঁছোতে পারে না, তাই কোঁকড়া চুল শুষ্ক হয়ে যায়। আর সেই কারণেই কোঁকড়া চুল রুক্ষও হয় বেশি। এই সমস্যা মেটাতেই কন্ডিশনার প্রয়োজন। কন্ডিশনার পুরো চুলের গায়ে মেখে গিয়ে প্রয়োজনীয় আর্দ্রতা জোগায়। নিয়মিত কন্ডিশনার লাগালে কোঁকড়া চুল হয়ে ওঠে নরম, চকচকে আর রুক্ষতাহীন।

 

05. আঁচড়ানোর সময় চুল ওঠে কম

05. আঁচড়ানোর সময় চুল ওঠে কম

আঁচড়ালেই গোছা গোছা চুল উঠে যায়, আর সেই ভয়েই কোঁকড়া চুল আঁচড়ান না? কোঁকড়া চুল এমনিতেই একটু মোটা আর ঘন হয়, তাই শুকনো অবস্থায় এ ধরনের চুল আঁচড়ানো প্রায় অসম্ভব, আর আঁচড়ানোর পরামর্শও দেওয়া হয় না। তাই স্নানের পর চুল ভেজা থাকতেই আঁচড়ে ফেলা দরকার। আঁচড়ানোর সময় চুলে যাতে কোনও অবাঞ্ছিত টান না লাগে আর চিরুনি চালানো যাতে সহজ হয়, তাই পর্যাপ্ত কন্ডিশনার চুলে সমানভাবে লাগান, তারপর মোটা দাঁড়ার চিরুনি দিয়ে আঁচড়ে নিন। এতে চুলের জট চলে যাবে, কোঁকড়া চুল হয়ে উঠবে চকচকে মসৃণ আর সামাল দেওয়াও সহজ হবে।

Manisha Dasgupta

Written by

Author at BeBeautiful.
1730 views

Shop This Story

Looking for something else