রূপচর্চার জগতে এমন বেশ কিছু উপাদান আছে, যা সারা বিশ্বের সৌন্দর্য সচেতন মানুষের মন কেড়ে নিয়েছে। তেমনই একটি উপাদান হল আর্গান অয়েল। তরল সোনা নামেও পরিচিত এই আশ্চর্য তেলটির জন্মভূমি মরক্কোয়। মরক্কোর স্থানীয় মেয়েরা রূপচর্চা আর ক্ষত সারানোর উপাদান হিসেবে বহু শতক ধরে আর্গান অয়েল ব্যবহার করে আসছেন। আর এ যুগে প্রিয়াঙ্কা চোপড়া জোনার আর কিম কার্দাশিয়াঁর মতো নামী সেলিব্রিটি আর বিউটি ইনফ্লুয়েন্সারও আর্গান অয়েলকেই বেছে নিয়েছেন নিজেদের নিখুঁত রূপের রহস্য হিসেবে।

নতুন যে সব বিউটি প্রডাক্ট আসছে বাজারে, সেখানেও অন্যতম জরুরি উপাদান হয়ে উঠেছে আর্গান অয়েল, যা প্রতিটি ত্বকের ধরনের উপযোগী। ত্বকে অকালে বয়সের দাগ পড়া আটকানো থেকে শুরু করে মুখের কালো দাগছোপ কমিয়ে দেওয়া পর্যন্ত এমন কোনও কাজ নেই যা আর্গান অয়েল পারে না! কেন এক্ষুনি আপনার ত্বক পরিচর্যার রুটিনে রাখবেন আর্গান অয়েলকে, সে সম্পর্কে জেনে নিন পাঁচটি কারণ।

 

 

01. ত্বকের আর্দ্রতা রক্ষা করে

01. ত্বকের আর্দ্রতা রক্ষা করে

আর্গান অয়েলের বিপুল জনপ্রিয়তার পেছনে যে কারণটি আছে তা হল, আর্গান অয়েল ত্বকের পক্ষে খুব ভালো ময়শ্চারাইজার। এতে ভিটামিন ই, অ্যান্টিঅক্সিডান্ট এবং ফ্যাটি অ্যাসিড রয়েছে যা ত্বকের আর্দ্রতা ধরে রাখতে সাহায্য করে। আমাদের সেরা পছন্দ হল লাভ বিউটি অ্যান্ড প্ল্যানেট আর্গান অয়েল অ্যান্ড ল্যাভেন্ডার সুদিং বডি লোশন/ Love Beauty and Planet Argan Oil & Lavender Soothing Body Lotion, এতে রয়েছে খাঁটি মরক্কান আর্গান অয়েল, অর্গানিক নারকেল তেল, এবং হাতে তোলা ফরাসি ল্যাভেন্ডার। এটি ভেগান প্রডাক্ট এবং এতে প্যারাবেন, কৃত্রিম সুগন্ধ বা সিলিকনের মতো ক্ষতিকর উপাদান নেই। এই তেল আপনার ত্বক মসৃণ করে এবং 24 ঘণ্টা পুষ্টি জোগায়। তা ছাড়া ল্যাভেন্ডারের মিষ্টি সুগন্ধ আপনাকে দিনভর রাখবে সৌরভে ভরপুর!

 

02. রুখে দেয় অকালবার্ধক্য

02. রুখে দেয় অকালবার্ধক্য

আর্গান অয়েলের অপর নাম 'তরল সোনা'। নামের মাহাত্ম্য বজায় রেখে আর্গান অয়েল সত্যিই ত্বকের সৌন্দর্য রক্ষার এক অতি আশ্চর্য উপাদান এটি। ভিটামিন এ, ভিটামিন ই, ওমেগা ফ্যাটি অ্যাসিড, স্যাপোনিন ও মেলাটোনিনে ভরপুর আর্গান অয়েল নিয়মিত মাখলে ত্বক টানটান থাকে, ত্বকের ইলাস্টিসিটি উন্নত হয় এবং সূক্ষ্ম রেখা ও বলিরেখা কমে যায়। এই তেল মাখলে ত্বকের আর্দ্রতা বাড়ে, ত্বক মসৃণ, লাবণ্যময় হয়ে ওঠে।

 

03. সব ধরনের ত্বকের উপযোগী

03. সব ধরনের ত্বকের উপযোগী

এমন উপকারিতা খুব কমই মেলে! অন্যান্য অনেক ভেষজ তেল বেশ ভারী হয়, কিন্তু আর্গান অয়েল সে তুলনায় অনেক হালকা, তাই তৈলাক্ত, শুষ্ক, কম্বিনেশন, এমনকী, স্পর্শকাতর ত্বকেও খুব ভালো কাজ করে। এই তেল খুব তাড়াতাড়ি ত্বকে শুষে যায়, তাই রোমছিদ্র বন্ধ হয় না, ত্বক তেলতেলে বা চটচটেও লাগে না। তা ছাড়া আর্গান অয়েল মেখে তার ওপর অন্য স্কিনকেয়ার আর মেকআপ প্রডাক্ট লাগানো যায়, ত্বক একটুও ভারী লাগে না।

 

04. রোদ থেকে সুরক্ষা দেয়

04. রোদ থেকে সুরক্ষা দেয়

একাধিক গবেষণা থেকে দেখা গেছে আর্গান অয়েলের অ্যান্টিঅক্সিডান্ট ত্বককে রোদের ফ্রি র‍্যাডিক্যাল জনিত ক্ষতির মোকাবিলা করার জন্য প্রস্তুত করে তোলে। ফলে ত্বক সানবার্ন বা পিগমেন্টেশন থেকে সুরক্ষিত থাকে। তাই সানস্ক্রিন তো একেবারেই বাদ দেবেন না, বরং রোদ থেকে বাড়তি সুরক্ষা পেতে মেখে নিন লাভ বিউটি অ্যান্ড প্ল্যানেট আর্গান অয়েল অ্যান্ড ল্যাভেন্ডার সুদিং বডি লোশন Love Beauty and Planet Argan Oil & Lavender Soothing Body Lotion

 

05. কালো দাগছোপ, ব্রণর দাগ কমায়

05. কালো দাগছোপ, ব্রণর দাগ কমায়

হরমোনের পরিবর্তন, অতিবেগুনি রশ্মি, মেলানিনের বৃদ্ধি, বয়স বৃদ্ধির মতো নানা কারণে ত্বকে কালো দাগ পড়তে পারে। চিকিৎসার পরিভাষায় এর নাম হাইপারপিগমেন্টেশন। আর্গান অয়েল এ ধরনের দাগ আর ব্রণর গর্ত ধীরে ধীরে হালকা করে দেয়। ভিটামিন ই মেলানিনের কালো পিগমেন্টেশন উৎপাদন রুখে দিয়ে কোষের বৃদ্ধি ঘটায়, আর আপনি পেয়ে যান স্বচ্ছ প্রাণবন্ত ত্বক। অ্যান্টি-ইনফ্লামেটরি হওয়ার সুবাদে এই তেল ত্বকে রোদ বা ক্ষতর কারণে তৈরি হওয়া লালচেভাব আর প্রদাহ কমায়। একেই তো সবার সেরা স্কিনকেয়ার উপাদান বলতে হয়, তাই না!