অ্যালো ভেরা হল ‘অমরত্বের গাছ’। এটি ত্বক পরিচর্যার জগতে একেবারেই অচেনা নয়। যদিও মাত্র কয়েক দশক আগে আমরা এই আশ্চর্য উপাদানটির নানা উপকারী গুণাগুণ আবিষ্কার করেছি, এটি কিন্তু রূপচর্চার বইতে জায়গা করে নিতে পেরেছে কয়েক শতাব্দী আগে থেকেই।

এখন তো প্রত্যেকেই জানেন যে, অ্যালো ভেরা পাতার আঠালো, চটচটে রস বা জেল সৌন্দর্যচর্চার বিভিন্ন গুণে সমৃদ্ধ এবং আপনার প্রায় সব ধরনের ত্বকের সমস্যার ক্ষেত্রে মুশকিল আসানের কাজ করে,  তবু এ নিয়ে খানিক বিশদে আলোচনা করা যাক। ত্বকের ধরন  তৈলাক্ত, শুষ্ক বা সংবেদনশীল যেমনই হোক, েয কোনও ধরনের ত্বকেই অ্যালো ভেরা ম্যাজিকের মতো কাজ করে আর দাগহীন খুঁতহীন ত্বকের মালিকানা পেতে গেলে এটি চাই-ই চাই। হয়তো আপনার বাড়ির পিছনের বাগানেই আছে এই কাঁটাওয়ালা ত্রিভুজের আকারের গাছটি, কিন্তু আপনি ওয়াকিবহালই নন যে এই গাছ আপনার ত্বকের ঠিক কী কী উপকার করতে পারে! দুশ্চিন্তা করবেন না, আমরা আজ সে বিষয়েই আপনাকে সাহায্য করতে এসেছি।

অ্যালো ভেরা জেল আপনার মুখের ত্বকের পক্ষে দারুণ উপকারী এবং এটি নিয়মিত ব্যবহার করলে আপনি দাগহীন, নিখুঁত মসৃণ ত্বক পেতে পারেন। পড়ুন এবং জানুন, কী কী কারণে এই অ্যালো ভেরা আপনার ত্বকের প্রতিদিনের নিয়মিত পরিচর্যায় অপরিহার্য। অ্যালো ভেরা দিয়ে সহজেই বানিয়ে নিন ঘরোয়া ফেস মাস্ক আর ত্বককে দিন অ্যালো ভেরার পুষ্টি।

শুষ্ক আর খসখসে ত্বকে প্রয়োজনীয় আর্দ্রতা জোগায় আর তা সারিয়ে তোলে
 

শুষ্ক আর খসখসে ত্বকে প্রয়োজনীয় আর্দ্রতা জোগায় আর তা সারিয়ে তোলে

অ্যালো ভেরাতে আছে আর্দ্রতা বজায় রাখার নিজস্ব প্রাকৃতিক গুণ। এটি ন্যাচারাল ময়শ্চারাইজ়ার। এটি ত্বকে জলীয় পদার্থ সরবরাহ করতে পারে আর ত্বকে শুষে যায় ম্যাজিকের মতো। তৈলাক্ত ত্বক আর যে ধরনের ত্বকে ব্রণ হওয়ার প্রবণতা থাকে, সেখানেও অ্যালো ভেরা খুব ভালো ময়শ্চারাইজ়ারের কাজ করে কারণ এর টেক্সচার খুব হালকা আর 99 শতাংশই জল।

ত্বকের প্রদাহে আরাম দেয়
 

ত্বকের প্রদাহে আরাম দেয়

অ্যালো ভেরা জেলে ত্বক শীতল করার গুণ রয়েছে। তাই ত্বক রোদে পুড়ে গেলে, র‍্যাশ বেরোলে, কোনওরকম সংক্রমণ হলে, লালচে ভাব দেখা দিলে আর চুলকানি হলে ত্বকে যে প্রদাহ হয়, অ্যালো ভেরা তাতে আরাম দিতে পারে। তাই সংবেদনশীল ত্বকের পরিচর্যায় এটি একটি অত্যাবশ্যক উপাদান। এটির অ্যান্টি-ফাঙ্গাল গুণ ত্বকের ইনফ্ল্যামেশন জাত সমস্যা যেমন, গরমের ফোঁড়া বা সিস্ট কমাতেও সাহায্য করে। স্বাভাবিকভাবেই গ্রীষ্মকালের স্কিনকেয়ার প্রডাক্টসেও অ্যালো ভেরা একটি অপরিহার্য উপাদান ।

ত্বকে বয়সের ছাপ পড়া থেকে রক্ষা করে
 

ত্বকে বয়সের ছাপ পড়া থেকে রক্ষা করে

যতই আপনার ত্বকের বয়স বাড়ে, তার টানটান ভাব বা ইলাস্টিসিটি কমে আর সেই বয়সের চিহ্ন হিসেবে চোখের কোনে সূক্ষ্ম রেখা, বলিরেখা দেখা েদয়, গলার চামড়া আলগা হয়ে যায়। অ্যালো ভেরা জেল এই সমস্যাটি কমাতে যথেষ্ট সাহায্য করে। এটি আপনার ত্বকে আর্দ্রতার পরিমাণ ঠিকঠাক বজায় রাখতে সহায়তা করে আর মুখের ত্বকের উজ্জ্বলতা ফিরিয়ে আনে। অ্যালো ভেরা যে শুধু বলিরেখা আর কুঞ্চন কমায় তাই-ই নয়, ত্বকের টানটান ভাব বাড়িয়ে আর ত্বকের কোষগুলি মেরামত করে ত্বকের অকালবার্ধক্যও চমৎকারভাবে প্রতিরোধ করে।

অ্যাকনের মোকাবিলা করে আর দাগছোপ কমায়
 

অ্যাকনের মোকাবিলা করে আর দাগছোপ কমায়

অ্যালো ভেরায় অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল আর অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি গুণ রয়েছে। তাই অ্যালো ভেরা ব্যবহার করে ব্রণর আক্রমণ প্রতিহত করা যায়। ব্রণ আর অ্যাকনের মূল কারণ হল ব্যাকটেরিয়া। অ্যালো ভেরা এই ব্যাকটেরিয়ার জন্ম নেওয়াকেই প্রতিহত করে। আর অ্যাকনে আর ব্রণ হয়ে থাকলে তাকেও তাড়াতাড়ি সারিয়ে তুলতে সহায়তা করে। ব্রণর উপর সামান্য একটু অ্যালো ভেরা জেল লাগিয়ে রাখলে খুব তাড়াতাড়ি তা সেরে যায়। শুধু তাই নয়, এটি অ্যাকনের বিশ্রী দাগ আর ব্রণ শুকিেয় যাওয়ার পরেও যে কালচে ছোপ থাকে, তা দূর করতেও সাহায্য করে ।

ডার্ক সার্কল দূর করে আর চোখের নিচের ফোলা ভাব কমায়
 

ডার্ক সার্কল দূর করে আর চোখের নিচের ফোলা ভাব কমায়

চোখের নিচের গভীর কালো ছোপ যা সহজে যায় না, তাও নির্মূল করতে ভরসা করুন অ্যালো ভেরার উপরে। এটি অ্যান্টি-অক্সিড্যান্টস আর ভিটামিন ই-তে ভরপুর, যা চোখের নিচের কালি ফিকে করে দিতে সাহায্য করে। অ্যালো ভেরা ঠান্ডা, তাই চোখের কোলের ফোলা ভাব কমাতেও সহায়তা করে। তাই বলতে পারেন, এক ঢিলে দুই পাখি মারা যায়। রাতে চোখের চারপাশে অ্যালো ভেরা জেল লাগিয়ে রাখলে তা চোখের ফোলা ভাব কমিয়ে দেয় আর ডার্ক সার্কল ফিকে করে দেয়।

মুখে অ্যালো ভেরা জেল ব্যবহার করার 3টি উপায়
 

মুখে অ্যালো ভেরা জেল ব্যবহার করার 3টি উপায়

অ্যালো ভেরা ব্যবহার করে সমস্তরকম ত্বকের সমস্যা থেকে সুরাহা পাওয়া সম্ভব। এ কথা জানার পর নিশ্চয়ই চাইছেন যত তাড়াতাড়ি সম্ভব এটি ব্যবহার করতে? জেনে নিন তিনটি উপায়, যাতে আপনি অ্যালো ভেরার গুণাগুণগুলি কাজে লাগিয়ে আপনার ত্বক পরিচর্যায় তা যোগ করে সুস্থ, সুন্দর আর নিখুঁত ত্বক পেতে পারেন ।

গাছ থেকে সরাসরি নিষ্কাশন করুন খাঁটি অ্যালো ভেরা জেল
 

গাছ থেকে সরাসরি নিষ্কাশন করুন খাঁটি অ্যালো ভেরা জেল

এক টুকরো অ্যালো ভেরা পাতা কেটে নিন। কাঁটা পরিষ্কার করে যেদিকে জেল আছে, সেটি মুখে ঘষুন। পাতা থেকে খানিকটা টাটকা থকথকে রস ছুরি দিয়ে চেঁছে বার করে নিতে পারেন। গোটা দুয়েক পাতা থেকে যতটা জেল পাবেন, তা পরিমাণে যথেষ্ট। আরও বেশি পরিমাণে চাইলে বেশি করে জেল বের করে নিন। এবার তাতে খানিকটা আমণ্ড অয়েল মিশিয়ে নিয়ে মিশ্রণটি রাতে শুতে যাওয়ার আগে মুখে আর ঘাড়ে আঙুল দিয়ে ভালো করে মেখে নিন। সারা রাত ওভাবেই রেখে দিন। সকালে উঠে ভালো করে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

ঘরেই নিজের হাতে বানিয়ে নিন অ্যালো ভেরা ফেস মাস্ক
 

ঘরেই নিজের হাতে বানিয়ে নিন অ্যালো ভেরা ফেস মাস্ক

তৈলাক্ত/ মিশ্র ধরনের ত্বকের জন্য: তৈলাক্ত ত্বকের জন্য এটি এক বিশেষ ধরনের অ্যালো মাস্ক, যা আপনাকে ত্বক থেকে বাড়তি তেল শুষে নিতে সাহায্য করবে আর অ্যাকনে প্রতিরোধ করবে । একটি বাটিতে খানিকটা টাটকা অ্যালো ভেরা জেল নিয়ে তাতে ১০-১২ ফোঁটা টি ট্রি অয়েল মেশান। এবার ভালো করে মিশিয়ে মসৃণ লেই তৈরি করে নিন। মুখে মেখে সারা রাত ওভাবেই রেখে দিন, সকালে উঠে মুখ ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে দু-দিন ব্যবহার করবেন।

শুষ্ক ত্বকের জন্য অ্যালো ভেরা
 

শুষ্ক ত্বকের জন্য অ্যালো ভেরা

শুষ্ক ত্বকের জন্য : শুষ্ক আর অনুজ্জ্বল ত্বককে মোলায়েম আর তরতাজা করার জন্য ফেস মাস্ক বানান অ্যালো ভেরা জেল, মধু আর শসা দিয়ে । এই তিনটি উপাদানই জলীয় পদার্থ সরবরাহ করে অর্থাৎ এগুলি হাইড্রেটিং এজেন্ট আর আপনার ত্বককে করে তোলে কোমল আর উজ্জ্বল। একটি শসা ব্লেন্ড করে নিয়ে তাতে এক টেবিলচামচ মধু আর এক টেবিলচামচ অ্যালো ভেরা জেল মেশান। এবার তিনটি উপাদান খুব ভালোভাবে একসঙ্গে মিশিয়ে নিয়ে মিশ্রণটি মুখে মেখে ২০ মিনিট অপেক্ষা করে মুখ ধুয়ে ফেলুন।

স্বাভাবিক/সংবেদনশীল ত্বকের জন্য অ্যালো ভেরা
 

স্বাভাবিক/সংবেদনশীল ত্বকের জন্য অ্যালো ভেরা

স্বাভাবিক/সংবেদনশীল ত্বকের জন্য : অ্যালো ভেরা জেল আর পাকা কলা দিয়ে তৈরি ফেস মাস্ক এমন একটি ফেস মাস্ক, যা ত্বককে ময়শ্চারাইজ় করতে আর তার উজ্জ্বলতা বাড়াতে সহায়তা করে। এটি সব ধরনের ত্বকেই কাজ করে, বিশেষ করে স্বাভাবিক ত্বকে আর সংবেদনশীল ত্বকে। এটি ত্বককে র‍্যাশ আর চুলকানি থেকে আরাম দেয় আর ত্বকের টানটান ভাব বাড়ায়। একটি পাত্রে একটি পাকা কলা ভালোভাবে চটকে নিন, তাতে ২ টেবিলচামচ অ্যালো ভেরা জেল আর কয়েক ফোঁটা গোলাপজল যোগ করুন। ভালোভাবে মিশিয়ে নিয়ে মিশ্রণটি মুখে মাখুন। শুকিয়ে গেলে মুখ ধুয়ে ফেলে ময়শ্চারাইজ়ার লাগিয়ে নিন।

ব্যবহার করুন অ্যালো ভেরা ইনফিউজড স্কিনকেয়ার প্রোডাক্টস
 

ব্যবহার করুন অ্যালো ভেরা ইনফিউজড স্কিনকেয়ার প্রোডাক্টস

আপনার ত্বক পরিচর্যায় অ্যালো ভেরা জেল ব্যবহারের আর একটি উপায় হল এমন  স্কিনকেয়ার  প্রোডাক্টস ব্যবহার করা, যেগুলিতে উপাদান হিসেবে অ্যালো ভেরা জেল ব্যবহার করা হয়েছে । আপনার মুখ ধুতে ব্যবহার করুন অ্যালো ইনফিউজ়ড ফেস  ওয়াশ, যেমন লিভার আয়ুষ অ্যালো ভেরা অয়েল ক্লিয়ার ফেস ওয়াশ। ব্যবহার করুন ল্যাকমে 9 to 5 ন্যাচারেল অ্যালো অ্যাকোয়া জেল, যা আপনার ত্বককে দূষণ থেকে রক্ষা করবে, এবং আপনার ত্বককে দেবে অ্যালোর আর্দ্রতা। আপনি ব্যবহার করে দেখতে পারেন ল্যাকমে 9 to 5 ন্যাচারাল ডে ক্রিম SPF 20, যাতে আছে অ্যালো ভেরা জেলের গুণ এবং SPF 20  আপনাকে সারা দিন ধরে আলট্রাভায়োলেট রশ্মি থেকে সুরক্ষা দেয় আর আপনার ত্বককে রাখে আর্দ্র। ফাটা ঠোঁটের জন্য নির্ভর করতে পারেন ভেসলিন অ্যালো ভেরা লিপ বামের উপরে, আপনার ঠোঁট হবে নরম আর গোলাপি, সে ঘরের বাইরে যতই গরম আর ভ্যাপসা আবহাওয়া থাকুক না কেন !

যদি আপনার স্বভাব এমন হয়, যে সব সময়েই ব্যস্ততা, সব সময়েই তাড়াহুড়ো করছেন, তাহলে আপনার জন্য আছে একটি ভিডিও টিউটোরিয়াল, যাতে দেখানো হয়েছে কীভাবে আপনি আপনার নিয়মিত ত্বক-পরিচর্যায় অ্যালো ভেরা ব্যবহার করতে পারেন ।