রোজকার খাবারেই লুকিয়ে আছে সৌন্দর্য আর সুস্বাস্থ্যের চাবিকাঠি। আমরা প্রতিদিন যা খাই, তার প্রত্যক্ষ প্রভাব পড়ে আমাদের শরীরে আর সে জন্যই সঠিক খাবার খেলে ত্বক আর চুলে স্বাস্থ্যের জেল্লা খোলে। তাই পুষ্টিতত্ত্ববিদ থেকে ত্বক বিশেষজ্ঞ, সকলেই এমন খাবার খেতে উৎসাহ দেন যা ত্বকে পুষ্টি জোগাতে পারে। আসলে ত্বক নরম আর আর্দ্র রাখতে বাইরে থেকে ত্বকের যত্ন নেওয়া, ত্বকে যথাযথ আর্দ্রতা জোগানো যতটা দরকার, ঠিক ততটাই জরুরি ভিটামিনে ভরপুর স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া।

সুন্দর, স্বাস্থ্যঝলমলে, নরম আর তারুণ্যে ভরপুর ত্বকের জন্য প্রতিদিনের খাবারে রাখুন এ সব খাবার।

 

অ্যাভোকাডো

অ্যাভোকাডো

অ্যাভোকাডোতে মনোআনস্যাচুরেটেড ফ্যাটের পরিমাণ অত্যন্ত বেশি, তা ছাড়া একাধিক পুষ্টিকর উপাদানও থাকে পর্যাপ্ত পরিমাণে। প্রতিদিন খাবারে অ্যাভোকাডো থাকলে আপনার ত্বকে খুব দ্রুত ফুটবে স্বাস্থ্যের জেল্লা, ত্বক থাকবে নরম আর টানটান। অ্যাভোকাডোর শাঁস অনেকটা মাখনের মতো, তাই একাধিক রান্নায় অ্যাভোকাডো যোগ করতে পারেন। এমনকী, ত্বকে চটজলদি আর্দ্রতা চাইলে সরাসরি মুখেও মাখতে পারেন।

 

ডিমের কুসুম

ডিমের কুসুম

ভিটামিন এ-র ভাঁড়ার রয়েছে ডিমের কুসুমে। ডিমের কুসুম ত্বকে নতুন কোষ জন্মাতে সাহায্য করে। যাঁদের ত্বকে কোনও সমস্যা রয়েছে বা যাঁদের খুব ব্রণ বেরোয়ে, তাঁরা ডিমের কুসুম খেলে উপকার পাবেন।

 

আখরোট

আখরোট

স্বাস্থ্যের জেল্লায় ভরপুর, উজ্জ্বল ত্বক পেতে চাইলে রোজ একমুঠো আখরোট খান। কাঁচা আখরোটে ওমেগা থ্রি ফ্যাটি অ্যাসিড আর অ্যান্টিঅক্সিডান্ট থাকে যা ফ্রি র‍্যাডিক্যালসের মোকাবিলায় দক্ষ! আখরোটে অ্যান্টি-ইনফ্ল্যামেটরি অর্থাৎ অর্থাৎ প্রদাহ কমানোরও ক্ষমতা থাকে যা ব্রণ কমাতে সাহায্য করে।

 

বেরি

বেরি

বেরি জাতীয় ফলে অ্যান্টিঅক্সিডান্ট প্রচুর পরিমাণে থাকে, যা ত্বকের কোলাজেনকে রোদ আর দূষণজনিত ক্ষতির হাত থেকে বাঁচায়। রোজকার খাবারে স্ট্রবেরি, ব্লুবেরি, র‍্যাস্পবেরির মতো ফল রাখার চেষ্টা করুন।

 

লেবুজাতীয় ফল

লেবুজাতীয় ফল

লেবুতে ভিটামিন সি থাকে, যা ত্বক থেকে বয়সের সমস্ত দাগছোপ দূরে রাখে। লেবুজাতীয় ফল এমনি খান বা হালকা রান্না করে খান, আপনার ত্বক থাকবে মসৃণ আর তারুণ্যে ভরপুর!