নরম তুলতুলে গোলাপের পাপড়ির মতো ঠোঁট সৌন্দর্যের জগতে সবসময়েই সুপারহিট! মিষ্টি ডলপুতুলের মতো করেই সাজুন বা হয়ে উঠুন সেক্সি সুপারমডেল, গোলাপি ঠোঁটের কোনও বিকল্প নেই! কিন্তু স্বাভাবিক গোলাপি ঠোঁট আর ক'জনেরই বা থাকে! আপনার ঠোঁটের রং যদি কালচে হয়, আর গোলাপি লিপস্টিক বা গ্লস যদি নেহাতই বেমানান দেখায়, কী করবেন তা হলে? দুশ্চিন্তা করবেন না! কারণ আমরা আপনাকে বলে দেব এমন কিছু দারুণ উপায় যা প্রয়োগ করে সহজেই ঠোঁটের রং হালকা করে ফেলতে পারবেন আপনি, আর তাও ঘরে বসেই! পড়তে থাকুন!
 

পাতিলেবুর রস

পাতিলেবুর রস

ত্বকের দাগছোপ, ব্রণর কালো দাগ কমাতে পাতিলেবুর রসের জুড়ি নেই, এ কথা তো অনেকেই জানেন! কিন্তু জানেন কি, ত্বকের রং হালকা করতেও লেবুর রস দারুণ কার্যকর এবং ঠোঁটের কালোভাব দূর করতে নিমেষে কাজ করে!

একটা পাতিলেবু থেকে রস নিংড়ে বের করে নিন। রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে ঠোঁটে লাগিয়ে নিন। নিয়মিত করলে শিগগিরই তফাত বুঝতে পারবেন।

গোলাপের নির্যাস

গোলাপি ঠোঁট পেতে বেছে নিন গোলাপকেই! এক বোতল গোলাপ জলে অল্প মধু মেশান। তারপর সেই মিশ্রণটা দিয়ে রোজ কোমলভাবে ঠোঁট স্ক্রাব করুন আর দেখুন আপনার কালচে ঠোঁট কীভাবে ধীরে ধীরে গোলাপি হয়ে ওঠে!

গোলাপ ব্যবহার করার আর একটি পদ্ধতি আছে। অল্প দুধে গোলাপের পাপড়ি ভিজিয়ে রাখুন, তারপর বেটে নিন। এই বাটায় কয়েক ফোঁটা মধু যোগ করুন, তাতে কার্যকারিতা বাড়বে। রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে ঠোঁটে লাগিয়ে নিন আর ভোরে পেয়ে যান তুলতুলে নরম গোলাপি ঠোঁট!

 

বিটের রস

বিটের রস

ঠোঁটে ঝলমলে গোলাপি রং পেতে বিট ম্যাজিকের মতো কাজ করে। বিট কাটলে যে রস বেরোয় তা ঠোঁটে লাগালে ঠোঁটের কালচেভাব স্বাভাবিকভাবেই কেটে যাবে, ঠোঁটও প্রাকৃতিকভাবে গোলাপি হয়ে উঠবে।

বিট কেটে একটা টুকরো বের করে ফ্রিজে রেখে দিন। হাতে খানিকটা অবসরের সময় যখন পাবেন (টিভি দেখার সময়) ঠান্ডা টুকরোটা কয়েক মিনিট ধরে ঠোঁটে ঘষুন। 15-20 মিনিট রেখে ধুয়ে ফেলুন, কালচে ঠোঁট ধীরে ধীরে হালকা হয়ে গোলাপি হয়ে উঠবে।

বেদানা

সকালের খাবারের আদর্শ ফল হিসেবে বেদানার জনপ্রিয়তা ঘরে ঘরে! একই সঙ্গে ঠোঁটের কালচেভাব কমাতেও বেদানা দারুণ কাজের! বেদানা ঠোঁটে পুষ্টি জোগায়, ঠোঁটের আর্দ্রতা বজায় রাখে আর তার সঙ্গে এনে দেয় একটা স্বাভাবিক গোলাপি রং।

এক টেবিলচামচ বেদানা থেঁতো করে নিয়ে তার সঙ্গে অল্প দুধের সর আর গোলাপ জল মেশান। এই মিশ্রণটা ঠোঁটে লাগিয়ে হালকা হাতে কয়েক মিনিট স্ক্রাব করুন। তার[অর হালকা গরম জলে ধুয়ে ফেলুন। প্রতিদিন লাগালে দারুণ ফল পাবেন!

 

চিনি

চিনি

চিনির দানায় দারুণ এক্সফোলিয়েশনের গুণ রয়েছে। ঠোঁটের কালো মৃত কোষ তুলে ফেলতে চিনি খুব কাজের। ঠোঁটের কালচেভাব কমানোর এত সহজ সমাধান আর নেই!

দু' চামচ চিনি নিন, তাতে অল্প জল মিশিয়ে ঘন পেস্ট তৈরি করুন। স্ক্রাবের কার্যকারিতা বাড়াতে মধু আর লেবুর রসও যোগ করতে পারেন, তাতে নরম মসৃণ ঠোঁট পাবেন। প্রাকৃতিক উপায়ে ঠোঁট স্ক্রাব করার পর ঠোঁটের আর্দ্রতা ফিরিয়ে আনতে মোটা করে ভেসলিন পেট্রোলিয়াম জেলি/ Vaseline Petroleum Jelly মেখে নিন।

বেরি

র‍্যাস্পবেরি, স্ট্রবেরি খেতে সবারই ভালো লাগে! তবে সবটা খেয়ে না ফেলে খানিকটা ঠোঁটের জন্য বাঁচিয়ে রাখুন! বেরির মধ্যে অ্যান্টি-অক্সিডান্ট গুণ রয়েছে, আর রয়েছে ভিটামিন আর মিনারেল যা ঠোঁটের রং স্বাভাবিকভাবে হালকা করে তোলে।

পেট্রোলিয়াম জেলির সঙ্গে র‍্যাস্পবেরি বা স্ট্রবেরির রস মিশিয়ে ঠোঁটে লাগাতে পারে। ঠোঁটের কালোভাব হালকা করতে এটি অত্যন্ত ভালো প্রাকৃতিক সমাধান। একটা কথা মনে রাখবেন। প্রাকৃতিক সমাধান তো আছেই, তার পাশাপাশি ঠোঁটের রং কালো হয়ে যাওয়া আটকাতে আরও কিছু পদক্ষেপ করতে পারেন আপনি। আমাদের পরামর্শ শুনতে চান? ঠোঁটে লাগিয়ে নিন ল্যাকমে লিপ লাভ/ Lakmé Lip Love। এর গ্লসি ফিনিশ আর এসপিএফ দিনভর আপনার ঠোঁটকে আকর্ষণীয় ও সুরক্ষিত রাখবে।

ঘর থেকে এক পা বাইরে না বেরিয়েও ঠোঁটের রং হালকা করার উপায় তো জানলেন... এবার বেছে নিন আপনার সবচেয়ে পছন্দসই উপায়টি আর ইচ্ছেমতো লিপস্টিক পরুন!