প্যাচপেচে গরমের দিনে হালকা স্লিভলেস পোশাক আর ক্যাসুয়াল ট্যাঙ্ক টপ পরতে কী আরাম লাগে না? সত্যি বলতে, সম্ভব হলে পুরো গরমকালটাই স্লিভলেস আর ট্যাঙ্ক টপ পরে কাটিয়ে দিতাম আমরা অনেকেই! কিন্তু স্লিভলেসে স্বচ্ছন্দ থাকতে হলে বাহুমূলের রোম পরিষ্কার করে রাখা খুব দরকার! সমস্যা হল, মেয়েদের গ্রুমিংয়ের ক্ষেত্রে বিকিনি ওয়্যাক্সের পরে যদি আর কিছু থেকে থাকে যা মেয়েরাই সবচেয়ে অপছন্দ করেন, তা হল আন্ডারআর্ম হেয়ার রিমুভাল! আপনার হাত ও পায়ের ত্বকের চেয়ে বাহুমূলের ত্বক অনেক বেশি সংবেদনশীল, কাজেই বাহুমূলের রোম তোলার জন্য বাড়তি যত্ন প্রয়োজন। আরও একটা সমস্যা রয়েছে। নিয়মিত যাঁরা বাহুমূলের রোম তোলেন, তাঁদের অনেকেরই জায়গাটা কালো হয়ে যায়, ফুসকুড়িও বেরোয়!

তবে এ সমস্যার সমাধান রয়েছে। বাহুমূলের রোম তোলার জন্য আপনি শেভিং বা ওয়্যাক্সিং, যে পদ্ধতিই বেছে নিন না কেন, তার পরে মেনে চলুন কিছু বিশেষ নিয়ম, তাতে রোম তোলা সহজ হবে, ত্বকও থাকবে মসৃণ। দেখে নিন বাড়িতে বাহুমূলে শেভিং বা ওয়্যাক্সিং করার সময় কী কী মাথায় রাখবেন!

 

বাহুমূল ধুয়ে ফেলুন

বাহুমূল ধুয়ে ফেলুন

ওয়্যাক্সিং বা শেভ শুরু করার আগে কোমল সাবান বা বডিওয়াশ আর গরম জল দিয়ে বাহুমূল ধুয়ে নিন। এমনিতেই বগলে শরীরের বাকি অংশের তুলনায় বেশি ঘাম জমে, তা ছাড়া ডিওডোরান্ট বা রোল-অনের অবশেষও জমে থাকতে পারে। এ সবের কারণে রোম তোলার সময় প্রদাহ তৈরি হতে পারে। তাই বগলের রোম তোলার আগে জায়গাটা ভালো করে ধুয়ে নেওয়া দরকার।

 

বাহুমূল শুকনো করে মুছে নিন

বাহুমূল শুকনো করে মুছে নিন

বাহুমূল ধোওয়ার পরে সঙ্গে সঙ্গে ওয়্যাক্স লাগাবেন না। বগল ঘামে বা জলে ভিজে থাকলে ওয়্যাক্স ত্বকের ওপর বসে না। তাই বাহুমূল ধোওয়ার পরে তোয়ালে দিয়ে চেপে জলটা মুছে নিন, তারপর ঘাম শুষতে খানিক ট্যালকম পাউডার ছিটিয়ে নিন। এটা হল ওয়্যাক্সিংয়ের ক্ষেত্রে। অন্যদিকে আপনি যদি শেভ করেন, তা হলে কিন্তু শুকনো ত্বকে রেজর চালাবেন না একেবারেই। তাতে ঘষা লেগে কেটে যেতে পারে, ত্বক জ্বালা করতে পারে। স্নান করার সময়ই শেভিং সেরে নিন, কারণ তখনই ত্বক আর্দ্র আর ভেজা থাকবে।

 

হাত অর্ধেক তুলে রোম তুলবেন না

হাত অর্ধেক তুলে রোম তুলবেন না

বগলের রোম তোলার সময় পুরো হাত তুলুন। হাত অর্ধেক তুলে রাখলে বগলের ভাঁজের রোম ঠিকমতো পরিষ্কার করতে পারবেন না। তাই হাত মাথার ওপরে পুরো তুলে দিন। তাতে ভালোভাবে ওয়্যাক্স বা শেভ করতে পারবেন।

 

ব্যথা কমাতে এক্সফোলিয়েট

ব্যথা কমাতে এক্সফোলিয়েট

বাহুমূল নিয়মিত এক্সফোলিয়েট করলে ওয়্যাক্সিংয়ের ব্যথা কমবে, রোমও উঠে আসবে সহজে। এক্সফোলিয়েট করলে তেলময়লা, ব্যাকটেরিয়া যেমন দূর হয়, তেমনি রোমের গোড়াও আলগা হয়ে আসে। ঘরোয়া স্ক্রাব ব্যবহার করতে চাইলে চিনি, মধু আর লেবুর রস একসঙ্গে মিশিয়ে তৈরি করে নিতে পারেন। এটি আপনার বাহুমূল যেমন এক্সফোলিয়েট করবে, তেমনি কালো দাগছোপ থাকলে তাও কমে যাবে।

 

রেজর বা ওয়্যাক্স স্ট্রিপ টানার সময় খেয়াল রাখুন

রেজর বা ওয়্যাক্স স্ট্রিপ টানার সময় খেয়াল রাখুন

ঠিক করে করতে জানলে বাড়িতে বসে বাহুমূলের রোম শেভ করে বা ওয়্যাক্স করে তুলে দেওয়া খুব একটা কঠিন নয়। যদিও রোমের বৃদ্ধির উলটোদিকে ক্ষুর টানলে রোম প্রায় গোড়া থেকেই উঠে আসে, কিন্তু ত্বকের পক্ষে এ অভ্যাস ভালো নয়। এভাবে শেভ করলে সংবেদনশীল ত্বকে প্রদাহ তৈরি হতে পারে। ফলে শেভিং করার সময় রোমের বৃদ্ধির অভিমুখের ক্ষুর টানুন। ওয়্যাক্সিংয়ের সময় আবার অন্য নিয়ম। প্রথমে পাতলা করে ওয়্যাক্স লাগিয়ে নিন, তারপর রোমের বৃদ্ধির উলটোদিকে স্ট্রিপটা টেনে তুলে দিন। এভাবে করতে ত্বকের ওই অংশের সমস্ত রোম একবারে উঠে যাবে।