চুলের নিয়মিত যত্ন নিতে কোনও ভুল হয় না, ঠিকঠাক নানান প্রডাক্ট দিয়ে চুল পরিষ্কার করেন, স্টাইলও করেন নিখুঁতভাবে, অথচ একটা ব্যাপারে ভীষণ উদাসীনতা দেখাচ্ছেন আপনি! কিসে বলুন তো? সিঁথি পালটানোর ব্যাপারে! শেষ কবে সিঁথি পাল্টেছেন মনে পড়ে? আর সিঁথি না পালটে আখেরে কিন্তু বেশ কিছু সুবিধে থেকেও বাদ পড়ে যাচ্ছেন আপনি!

আসলে নিয়মিত সিঁথি পালটানোর বেশ কিছু ভালো দিক রয়েছে যা হয়তো আপনি ভাবতেও পারেননি! নিয়মিত সিঁথি পালটে দিলে আপনার চুল গোড়া থেকে শ্বাস নিতে পারে, উড়ো চুলের সমস্যাও কমে যায় অনেকটাই। শুধু তাই নয়, সিঁথি বদলালে সঙ্গে সঙ্গে আপনার লুকটাও পালটে যায়। যাঁরা মাঝখানে সিঁথি করতে অভ্যস্ত, তাঁরা ধারে সিঁথি কাটলে চুলে খানিকটা ভল্যুমও পান! আর কী চাই!

দেখে নিন কী কী কারণে মাঝেমধ্যেই পালটে দিতে পারেন আপনার সিঁথির অবস্থান।

why you should keep switching your parting

#01: পেয়ে যান ব্র্যান্ড নিউ লুক

সত্যিটা স্বীকার করাই ভালো! নিজেদের একইভাবে দেখতে দেখতে নিজেরাই ক্লান্ত হয়ে যাই কখনও কখনও। ফলে লুক বদলানোর দরকার হয়ে পড়ে! চুলের রং বদলানো বা অন্যরকম স্টাইলে চুল কাটার ঝকমারিতে যেতে ইচ্ছে না করলে স্রেফ বদলে নিন সিঁথি, কাজ হয়ে যাবে ওতেই!

মাঝখানে সিঁথি করতে অভ্যস্ত হলে পালটে ধারে করে নিন, আর ধারে সিঁথি কাটার অভ্যেস থাকলে উল্টোটা! একঘেয়ে লুক পালটে যাবে এক নিমেষে!

#02: কমিয়ে ফেলুন চুল ওঠা

নিশ্চয়ই ভাবছেন, সিঁথি পালটে ফেললে চুল ওঠা কমবে কীভাবে! আসলে ব্যাপারটা হল, দিনের পর দিন একটা নির্দিষ্ট জায়গায় সিঁথি করার ফলে মাথার একই অংশের চুল রোদ-জলের শিকার হয়। ফলে চুল উঠে যায় এবং সিঁথির দু'পাশের চুল ক্রমশ পাতলা হতে শুরু করে। আবার ক্রমাগত একই জায়গায় সিঁথি করার কারণে ওই অংশের চুলে বেশি টান লাগে, সেজন্যও চুল উঠে যায়। তাই মাঝেমধ্যেই সিঁথি পালটে ফেলুন, চুল ভালো থাকবে।

why you should keep switching your parting

#03: খুসকি আর সাদা চুল লুকিয়ে ফেলুন

চুল অকালে পাকতে শুরু করলে তার প্রথম চিহ্ন দেখা যায় চুলের গোড়ার দিকটায়। খুসকির ক্ষেত্রেও বিষয়টা একই। আপনার মাঝে সিঁথি করার অভ্যেস থাকলে পালটে ধারে নিয়ে যান। তাতে রং না করেই পাকা চুল অনেকটাই ঢেকে ফেলতে পারবেন, পাশাপাশি খুসকির উপদ্রবও অতটা ওপর থেকে দেখা যাবে না (অন্য পদ্ধতি কাজ না করলে ট্রাই করে দেখুন)।

আর সবচেয়ে ভালো ব্যাপারটা কী জানেন? মাঝখান থেকে সিঁথি সরিয়ে ধারের দিকে নিয়ে গেলে সঙ্গে সঙ্গে চুলে পেয়ে যাবেন বাড়তি ভল্যুম। নিজেই পরখ করে দেখুন!

#04: এক্সপেরিমেন্ট করার সুযোগ

মাঝে অথবা ধারে... ভাবছেন মাত্র এই দু'ভাবেই সিঁথি কাটা যায়? মোটেও না! বরং সিঁথি নিয়ে অনেকরকম পরীক্ষানিরীক্ষা করারও সুযোগ রয়েছে! ডায়াগোনাল সিঁথি কাটুন, আঁকাবাঁকা করে সিঁথি কাটুন, এমনকী সবসময়ই যে সিঁথি নিখুঁত করতে হবে তারও কোনও কথা নেই! সিঁথি বরাবর চুলের গোড়ায় অল্প গ্লিটার ছিটিয়ে দিতে পারেন, বাড়তি গ্ল্যামার পাবেন। এই ছোট্ট ছোট্ট কৌশলগুলোই আপনার হেয়ারস্টাইলের মান কয়েকগুণ বাড়িয়ে দেবে আর তার জন্য ঘণ্টার পর ঘণ্টা সময়ও দিতে হবে না! একবার স্লিক ওয়েট লুক চুলে ট্রাই করুন এই স্টাইল, আর দেখুন কীভাবে পালটে যায় আপনার লুক!