কাঁধের ওপর সারাক্ষণই সাদা সাদা আঁশ ঝরে পড়ে, মাথা চুলকোয়? তা হলে খুসকির সমস্যা থেকে আপনিও মুক্ত নন। খুসকি সামাল দেওয়া একদিকে যেমন বিরক্তিকর, তেমনি তা সারানোও বেশ ঝামেলার। বেশিরভাগ খুসকির সলিউশন আপনার চুল শুষ্ক করে দেয়, চুল নিষ্প্রাণ আর নির্জীব/ dull and lacklustre দেখায়। খুসকির বিরুদ্ধে যুদ্ধ করেও আপনি যদি এতদিনে সফল না হয়ে থাকেন, তা হলে এ লেখা আপনার জন্য। আমরা নিয়ে এসেছি খুসকি তাড়ানোর পাঁচটি সহজ উপায় যা চুল শুষ্ক করবে না।

 

01. কোমল অথচ কার্যকর অ্যান্টি-ড্যানড্রাফ শ্যাম্পু ব্যবহার করুন

01. কোমল অথচ কার্যকর অ্যান্টি-ড্যানড্রাফ শ্যাম্পু ব্যবহার করুন

চুলে বারবার শ্যাম্পু করা ঠিক নয়। তাতে একদিকে যেমন স্ক্যাল্পের স্বাভাবিক জরুরি তেলের আস্তরণ নষ্ট হয়ে যায়, তেমনি চুলও শুষ্ক হয়ে যায়। তাই ডাভ ড্যানড্রাফ ক্লিন অ্যান্ড ফ্রেশ শ্যাম্পু Dove Dandruff Clean & Fresh Shampoo -র মতো কোমল অথচ কার্যকর অ্যান্টি-ড্যানড্রাফ শ্যাম্পু ব্যবহার করাই ভালো, এবং এটি সপ্তাহে 2-3 বার ব্যবহার করতে পারেন। এই শ্যাম্পুর জেডপিটিও ফর্মুলা চিকিৎসকদের দ্বারা পরীক্ষিত এবং খুসকির একদম গোড়ায় কাজ করে প্রথম ওয়াশ থেকেই খুসকি কমায়। তা ছাড়া এই শ্যাম্পুটিতে মেন্থল রয়েছে যা স্ক্যাল্পে তরতাজাভাব আনে আর এর মাইক্রো ময়শ্চার সিরাম আপনাকে দেয় মসৃণ চুল।

 

02. মাথায় নারকেল তেল মাসাজ করুন

02. মাথায় নারকেল তেল মাসাজ করুন

ভালো করে মাথায় নারকেল তেল মাসাজ করলে কড়া খুসকিও কমবে। স্ক্যাল্প শুকনো হলে খুসকির সমস্যা বেড়ে যায়, তাই চুল আর স্ক্যাল্পের আর্দ্রতা বজায় রাখতে চুলে তেল মাখুন। নারকেল তেলের অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল গুণও খুসকি দূরে রাখে।

 

03. চুল ধুয়ে ফেলুন অ্যাপল সিডার ভিনিগারে

03. চুল ধুয়ে ফেলুন অ্যাপল সিডার ভিনিগারে

চুলের যত্নের অন্যতম সেরা উপাদান হিসেবে উঠে এসেছে অ্যাপল সিডার ভিনিগার, যা দিয়ে চুলের একাধিক সমস্যার সমাধান করতে পারেন আপনি। অ্যাসিডধর্মী ভিনিগার স্ক্যাল্পের পিএইচ ভারসাম্য বজায় রাখে আর খুসকি কমায়। স্ক্যাল্প থেকে মৃত কোষও সাফ করে দেয় এই উপাদানটি। তাই সপ্তাহে একবার অ্যাপল সিডার ভিনিগার দিয়ে চুল ধুয়ে ফেলুন, খুসকি দূর হবেই!

 

04. চুল পরিচর্যার রুটিনে যোগ করুন টি ট্রি অয়েল

04. চুল পরিচর্যার রুটিনে যোগ করুন টি ট্রি অয়েল

খুসকি কমানোর আর একটি দারুণ উপায় হল চুলের যত্নের রুটিনে টি ট্রি অয়েল যোগ করা। টি ট্রি অয়েল মাইক্রোব নাশ করে, প্রদাহ কমায়, ফলে খুসকি দূর হয় সহজেই। তবে সরাসরি স্ক্যাল্পে টি ট্রি অয়েল লাগাবেন না (তাতে ত্বক জ্বালা করতে পারে), বরং শ্যাম্পু বা নারকেল তেলে মিশিয়ে নিয়ে মাখুন।

 

05. স্ক্যাল্প এক্সফোলিয়েট করুন

05. স্ক্যাল্প এক্সফোলিয়েট করুন

মাথায় মৃত কোষ জমে গিয়ে খুসকির কারণ হয়ে উঠতে পারে। ফলে স্ক্যাল্প থেকে মৃত কোষ স্ক্রাব করে তুলে ফেলতে নিয়মিত স্ক্যাল্প এক্সফোলিয়েট/ exfoliate your scalp করতে হবে। তবে খুব জোরে ঘষাঘষি করবেন না। এমন স্ক্রাব বেছে নিন যা কোমল কিন্তু স্ক্যাল্প এক্সফোলিয়েশনের ক্ষেত্রে কার্যকর।