চুলের রুক্ষতা এমন একটা সমস্যা যার মোকাবিলা আমাদের রোজই করতে হয়। রুক্ষ চুলে আর্দ্রতা থাকে না, এবং হাইড্রেশনের খুব প্রয়োজন হয়। মাঝেমাঝে যতই অ্যান্টি-ফ্রিজ প্রডাক্ট/anti-frizz products বা রুক্ষ চুলের জন্য তৈরি হেয়ার মাস্ক/ hair masks for frizzy hair ব্যবহার করুন না কেন, চুলের হাল কিছুতেই ফেরে না। প্রডাক্ট লাগানোর পরেও বাঞ্ছিত ফল না পাওয়ার একটা কারণ হল দীর্ঘ সময় ধরে প্রডাক্ট লাগানো। এতে ময়শ্চার থাকে না, চুল ফুলে যায়। তবে চিন্তার কারণ নেই। রুক্ষ চুলের সমস্যা থেকে মুক্তি পাওয়ার পাঁচটি সহজ সমাধান জানাচ্ছি আমরা। চোখ বুলিয়ে নিন...

 

01. নিয়মিত চুল ছেঁটে ফেলুন

01. নিয়মিত চুল ছেঁটে ফেলুন

রুক্ষ চুলের অন্যতম কারণ হল ডগা ফাটা চুল। এই সমস্যা থেকে রেহাই পেতে নিয়মিত চুল ছেঁটে ফেলতে হবে। প্রতি দু' থেকে তিন মাস অন্তর চুলের ডগা ছেঁটে দিন। তাতে চুলের শেষভাগ পরিচ্ছন্ন থাকবে, রুক্ষতাও কমবে।

 

02. অ্যান্টি-ফ্রিজ শ্যাম্পু ব্যবহার করুন

02. অ্যান্টি-ফ্রিজ শ্যাম্পু ব্যবহার করুন

শ্যাম্পুতে কড়া কেমিক্যাল বা অ্যালকোহল থাকে যা চুল শুকনো করে দেয়, ফলে চুল রুক্ষ হয়ে যায়। এই সমস্যা এড়াতে লাভ বিউটি অ্যান্ড প্ল্যানেট ন্যাচারাল আর্গান অয়েল অ্যান্ড ল্যাভেন্ডার অ্যান্টি-ফ্রিজ শ্যাম্পু/ Love Beauty & Planet Natural Argan Oil & Lavender Anti-Frizz Shampoo -র মতো পুষ্টিদায়ক ও হাইড্রেটিং শ্যাম্পু ব্যবহার করুন। এই পরিচ্ছন্ন বিউটি শ্যাম্পুটিতে মরক্কোর খাঁটি আর্গান অয়েল, অর্গানিক নারকেল তেল আর হাতে তোলা ফরাসি ল্যাভেন্ডার রয়েছে যা চুলে পুষ্টি আর আর্দ্রতা জোগায় এবং চুল মসৃণ কোমল রাখে। এই শ্যাম্পুটিতে প্যারাবেন বা সিলিকনের মতো খারাপ উপাদান নেই, এবং এর সুন্দর গন্ধ শ্যাম্পু করার অনেকক্ষণ পরেও চুলে থেকে যায়।

 

03. কন্ডিশনার লাগান

03. কন্ডিশনার লাগান

হেয়ার কেয়ার রুটিনে কন্ডিশনারের গুরুত্ব অপরিসীম। কন্ডিশনার হল চুলের ময়শ্চারাইজার। এটি চুলে ময়শ্চার ধরে রাখে এবং চুল রুক্ষ হতে দেয় না। তাই রুটিনে লাভ বিউটি অ্যান্ড প্ল্যানেট ন্যাচারাল আর্গান অয়েল অ্যান্ড ল্যাভেন্ডার নো ফ্রিজ কন্ডিশনার/ Love Beauty & Planet Natural Argan Oil & Lavender No Frizz Conditioner যোগ করুন। চুলের দৈর্ঘ্যের মাঝামাঝি অংশ থেকে শেষ প্রান্ত পর্যন্ত লাগান, তাতে স্ক্যাল্প তেলতেলে হবে না।

 

04. রুটিনে রাখুন হেয়ার মাস্ক

04. রুটিনে রাখুন হেয়ার মাস্ক

অত্যন্ত রুক্ষ হয়ে যাওয়া চুলের দরকার শক্তিশালী ট্রিটমেন্ট। এখানেই হেয়ার মাস্কের ভূমিকা। শক্তিশালী উপাদান দিয়ে তৈরি হেয়ার মাস্ক চুলের গভীরে ঢুকে গিয়ে চুল উজ্জীবিত করে তোলে। ওট মিল্ক আর মধুর নির্যাসের মতো উপাদান রুক্ষ চুলে ম্যাজিকের মতো কাজ করে। সেজন্যই আমাদের পছন্দ ডাভ হেলদি রিচুয়াল ফর স্ট্রেংদেনিং হেয়ার মাস্ক/ Dove Healthy Ritual For Strengthening Hair Mask. । ওট মিল্ক আর মধুর নির্যাসে ভরপুর এই মাস্ক চুলের ক্ষতি সারিয়ে তোলে, রুক্ষতা কমায় এবং চুলের টেক্সচার মসৃণ করে চুল কোমল করে তোলে ফলে চুল সামলানো সহজ হয়।

 

05. রুক্ষতা সামলাতে সিরাম লাগান

05. রুক্ষতা সামলাতে সিরাম লাগান

চুল থেকে ময়শ্চার যাতে উবে না যায়, তার সেরা উপায় হল শ্যাম্পুর পরেই সেই ময়শ্চার চুলের গভীরে আটকে দেওয়া। ট্রেসমে কেরাটিন স্মুদ হেয়ার সিরাম/ TRESemmé Keratin Smooth Hair Serum আপনার চুলের রুক্ষতা তো কমাবেই, পাশাপাশি আপনাকে দেবে নরম মসৃণ চুল। ভেজা চুলে কয়েক ফোঁটা লেংথ বরাবর সমানভাবে লাগিয়ে নিন। এই সিরামে রয়েছে ক্যামেলিয়া অয়েল যা চুলের রুক্ষতা কমিয়ে উজ্জ্বলতা বাড়াবে, চুল হয়ে উঠবে ঝলমলে সুন্দর!