গরম মানে ত্বকের নানা সমস্যা লেগেই থাকে। আর তার মধ্যে সবচেয়ে বিরক্তিকর হল স্কিন শ্যাফিং! শ্যাফিং তা একদিকে যেমন যন্ত্রণাদায়ক, তেমনি এর ফলে হাঁটা, ব্যায়াম করার মতো দৈনন্দিন কাজে অসুবিধে হয়, কিছু বিশেষ পোশাকও পরা যায় না। যাঁরা শ্যাফিং কী জানেন না, তাঁদের বলি, স্কিন শ্যাফিং হল এমন একটি অবস্থা যাতে ত্বকে র‍্যাশের মতো বেরোয়।

জায়গাটা চুলকোতে পারে, জ্বালাভাবও থাকে। ঘামে ভেজা ত্বক পোশাকের সঙ্গে বা ত্বকের সঙ্গেই ঘষা লেগে এই পরিস্থিতি তৈরি হতে পারে। বলাই বাহুল্য, এই অবস্থাটি চূড়ান্ত অস্বস্তিকর! বেশিরভাগ ক্ষেত্রে শ্যাফিং হয় উরু অর্থাৎ থাইয়ের ভিতরের দিকের ত্বকে। আপনারও কি প্রতি বছর গরমে শ্যাফিংয়ের সমস্যা দেখা দেয়? তা হলে আমরা নিয়ে এসেছি সমাধান।

রইল তিনটি সহজ অথচ খুবই কার্যকর টিপস যা মেনে চললে এই গরমে শ্যাফিং ঠেকাতে পারবেন আপনি...

 

01. পাউডার লাগান

01. পাউডার লাগান

স্কিন শ্যাফিং এড়ানোর সবচেয়ে প্রাথমিক উপায় হল ওই অংশের ত্বক যথাসম্ভব শুকনো রাখা। ত্বক শুকনো থাকলে ঘষা কম লাগে, ফলে শ্যাফিং অনেকটা কমে। স্নানের পর ভালো করে ত্বক মুছে ওপরে বেশ করে ট্যালকম পাউডার ছড়িয়ে দিন। এতে বাড়তি ঘাম নিয়ন্ত্রণে থাকবে, থাই শ্যাফিংও কমে যাবে অনেকটাই।

বিবি-র পছন্দ: পন্ড'স ড্রিমফ্লাওয়ার ফ্র্যাগ্রেন্ট ট্যালকম পাউডার/ Pond’s Dreamflower Fragrant Talcum Powder

 

02. পেট্রোলিয়াম জেলি লাগিয়ে রাখুন

02. পেট্রোলিয়াম জেলি লাগিয়ে রাখুন

শ্যাফিং নিয়ন্ত্রণে রাখার আর একটা উপায় হল ত্বকের ওই অংশগুলো ভালোমতো আর্দ্র রাখা। তবে হালকা বডি লোশনের বদলে একটু ঘন কিছু লাগানোই ভালো, আর সেদিক থেকে পেট্রোলিয়াম জেলি আদর্শ। পেট্রোলিয়াম জেলি আপনার ত্বকের ওপরে আর্দ্রতার একটি ঘন আস্তরণ তৈরি করে, ফলে ত্বক তেলতেলে থাকে, অহেতুক ঘষা লাগে না।

বিবি-র পছন্দ: ভেসলিন অরিজিনাল পিওর স্কিন জেলি/ Vaseline Original Pure Skin Jelly

 

03. ফিটিং পোশাক পরুন

03. ফিটিং পোশাক পরুন

গরমের দিনে আলগা ঢিলেঢালা পোশাক পরতে আরাম লাগে ঠিকই, কিন্তু তাতে শ্যাফিংয়ের ভয় বেড়ে যায়। বরং ফিটিং পোশাক পরলে ত্বকের ওপর সুরক্ষার একটা বাড়তি আস্তরণ তৈরি হয়, ফলে এক উরুর ত্বকের সঙ্গে অন্য উরুর ত্বকের ঘষা লাগে না। গরমে শ্যাফিং এড়ানোর জন্য এই পদ্ধতি খুব কাজের।