ত্বকে পুষ্টি জোগাতে আর নিমেষে তাকে উজ্জীবিত করে তুলতে সবচেয়ে দ্রুত আর সহজ উপায় হল ফেস মাস্ক। লকডাউনের দিনগুলোয় যখন পার্লারে গিয়ে ত্বকের পরিচর্যা করার উপায় নেই, তখন ফেস মাস্কই হয়ে উঠেছে একমাত্র ভরসা। উপযুক্ত গুণমানের উপাদান ফেস মাস্কে মিশিয়ে ব্যবহার করলে আপনার ত্বকের সমস্যার অনেকটাই সামাল দেওয়া সম্ভব। সপ্তাহে দু' থেকে তিনদিন ফেস মাস্ক ব্যবহার করলে ত্বকের সুরক্ষাব্যবস্থা জোরদার হয়, শুষ্কতা কমে এবং ত্বক হয়ে ওঠে কোমল আর মসৃণ। এই লকডাউনে ত্বকের নানা সমস্যার সমাধানে পাঁচটি উপাদানের কথা বললাম আমরা। ফেস মাস্কে এ সব উপাদান আছে কিনা দেখে নিন।

 

1. ভিটামিন সি

1. ভিটামিন সি

ত্বকে নিমেষে ঝলমলে দীপ্তি চাইলে ভিটামিন সি/vitamin C -এর থেকে বেশি ভরসাযোগ্য আর কিছুই নেই। অ্যান্টিঅক্সিডান্টে ভরপুর ভিটামিন সি ত্বকে রোদ ও পরিবেশজনিত ক্ষতি সামাল দেয়। লকডাউনে নিয়মিত ভিটামিন সি শিট মাস্ক ব্যবহার করলে ত্বক থাকবে সুস্থ, উজ্জ্বল। এই উপাদানটি ত্বকের কালো দাগছোপ ধীরে ধীরে হালকা করে দেয়, হাইপারপিগমেন্টেশন কমায়, ফলে আপনি পেয়ে যান তারুণ্যে ভরপুর ঝকঝকে ত্বক!

বিবি-র পছন্দ: পন্ড'স ব্রাইটেনিং শিট মাস্ক উইথ ভিটামিন সি অ্যান্ড 100% ন্যাচারাল পাইন্যাপল/ Ponds Brightening Sheet Mask With Vitamin C And 100% Natural Pineapple

 

2. ওটের শাঁস

2. ওটের শাঁস

সকালের খাবার হিসেবে ওটস খুবই জনপ্রিয়, আর ত্বকের পক্ষেও খুব স্নিগ্ধ। ওটের দানার ভেতরে যে শাঁসের মতো নরম অংশ থাকে, তাতে বিটা-গ্লুকেন, লিপিড ও জরুরি ফ্যাটি অ্যাসিডের মতো একাধিক উপাদান রয়েছে। এ সব উপাদান ত্বক শীতল করা ও ত্বকের প্রতিরোধ ব্যবস্থা মজবুত করে তোলে এবং ত্বকের প্রদাহ কমায়। এই উপাদানগুলি ত্বকে দ্রুত শুষে যায় এবং সেই সঙ্গে নন-কমেডোজেনিক, ফলে সব ধরনের ত্বকের পক্ষেই উপযোগী।

বিবি-র পছন্দ: সেন্ট ইভস ওটমিল সুদিং মাস্ক শিট/ St. Ives Oatmeal Soothing Mask Sheet Sheet

 

3. নিয়াসিনামাইড

3. নিয়াসিনামাইড

ভিটামিন বিথ্রি-র একটি প্রকার হল নিয়াসিনামাইড / Niacinamide। ত্বকের যত্নে এটি নানাভাবে কাজ করে। ত্বকের লালচেভাব কমানো, সেবাম উৎপাদন নিয়ন্ত্রণে রাখা, হাইপারপিগমেন্টেশন কমানো, সূক্ষ্ম রেখা ও বলিরেখার প্রকোপ কমানোর মতো নানা কাজে সুনাম রয়েছে নিয়াসিনামাইডের। পার্লারে গিয়ে ত্বকের পরিচর্যা যতদিন না করতে পারছেন, ততদিন দৈনিক রূপচর্চার রুটিনে রাখুন নিয়াসিনামাইড, তফাৎ নিজেই বুঝতে পারবেন।

বিবি-র পছন্দ: পন্ড'স স্কিন ব্রাইটেনিং সিরাম মাস্ক উইথ ভিটামিন ই অ্যান্ড নিয়াসিনামাইড+সি ড্যাফোডিল/ Pond’s Skin Brightening Serum Mask With Vitamin E & Niacinamide + Sea Daffodil

 

4. বেন্টোনাইট ক্লে

4. বেন্টোনাইট ক্লে

আমাদের শরীরের যেমন ডিটক্স দরকার, তেমনি ত্বকেরও ডিটক্স দরকার, আর সেই কাজে একনম্বর হল বেন্টোনাইট ক্লে। জমে থাকা তেলময়লা পরিষ্কার করে রোমছিদ্রের মুখ খুলে দিতে জুড়ি নেই এই উপাদানটির। এর অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল গুণও রয়েছে, ফলে যাঁরা ব্রণর সমস্যায় ভোগেন তাঁরা এটি ব্যবহার করলে খুব উপকার পাবেন। বেন্টোনাইট ক্লে/ Bentonite clay খুব স্নিগ্ধ, তাই লকডাউনে যদি ত্বক কোনও কারণে সেনসিটিভ হয়ে পড়ে, তখন এই উপাদানটি প্রদাহ কমাতে সাহায্য করবে।

বিবি-র পছন্দ: ল্যাকমে অ্যাবসলিউট পারফেক্ট র‍্যাডিয়্যান্স মিনারেল ক্লে মাস্ক/ Lakmé Absolute Perfect Radiance Mineral Clay Mask

 

5. ভিটামিন ই

5. ভিটামিন ই

আর্দ্রতায় ভরপুর এবং সেই সঙ্গে শক্তিশালী অ্যান্টিঅক্সিডান্ট, কাজেই বাড়িতে হাতের কাছে ভিটামিন ই/ vitamin E রাখতেই হবে। যে কোনও ঘরোয়া মাস্কে ভিটামিন ই ক্যাপসুল কেটে ভেতরের তেলটা মিশিয়ে নিন, অথবা ভিটামিন-ই সমৃদ্ধ প্রডাক্ট ব্যবহার করুন। ত্বক থাকবে শান্ত, শীতল। সানস্ক্রিনের সান প্রোটেকশন ফ্যাক্টর আরও বাড়িয়ে তোলে ভিটামিন ই, এবং হাইপারপিগমেন্টেশন ও ত্বকের শুষ্কতার মতো সমস্যাগুলোও সামাল দেয়।

বিবি-র পছন্দ: ডার্মালজিকা স্কিন হাইড্রেটিং মাস্ক / Dermalogica Skin Hydrating Masque