সারা দিনের ক্লান্তির পর গরম জলে স্নান করার মতো আরাম আর কিছুতে নেই! নিমেষে তরতাজা হয়ে উঠতে গরম জলে স্নান বিকল্পহীন। আর তার সঙ্গে যদি যোগ হয় সুগন্ধী শাওয়ার জেল বা বডি স্ক্রাবের আদর, তা হলে তো আর কথাই নেই! রাতের ঘুমটুকু নিশ্ছিদ্র আরামের করতে এমন স্নানই তো দরকার!

কিন্তু জানেন কি, গরম জল একদিকে যেমন আপনার শরীর থেকে ক্লান্তি দূর করে আর মন শান্ত করতে সাহায্য করে, তেমনি অন্যদিকে আপনার ত্বকের ভীষণ ক্ষতিও করে দেয়? তাই গরম জলে স্নান করার আগেও কিছু ব্যাপারে খেয়াল অবশ্যই রাখতে হবে, আর এড়িয়ে চলতে হবে কিছু ভুল পদক্ষেপ। নিশ্চয়ই ভাবছেন, স্নান করতে গিয়ে আর কী ভুল হবে! আছে! ভুলের অনেক জায়গা আছে।

 বিষয়টা আপনাদের কাছে আরও একটু পরিষ্কার করে দেওয়ার জন্য আমরা জানিয়ে দিচ্ছি স্নানের সময় কিছু সাধারণ ভুলের কথা যা আপনার পরিষ্কার নিখুঁত ত্বক পাওয়ার পথে অন্তরায় হয়ে উঠছে।

 

ভুল #01: ঘন ঘন গরম জলে স্নান

ভুল #01: ঘন ঘন গরম জলে স্নান

আমরা জানি গরম জলে স্নান করা একেবারে জীবন থেকে বাদ দেওয়া সম্ভব নয়। দিনের শেষে ক্লান্ত শরীরকে ফের চাঙ্গা করে তুলতে গরম জলে স্নান অপরিহার্য! সমস্যা শুরু হয় রোজ রোজ গরম জলে স্নান করলে। কারণ গরম জল একদিকে যেমন ত্বক শুষ্ক করে দেয়, ত্বকে প্রদাহ সৃষ্টি করে, তেমনি রোজ গরম জলে স্নান করলে ত্বকে অকালে বুড়িয়ে যেতে/ শুরু করে। ফলে বেশিরভাগ দিন স্নানের জন্য ঈষৎ গরম জল বেছে নিন। একান্তই কখনও গরম জলে স্নান করতে হলে 10 মিনিটের বেশি টানবেন না।

 

ভুল #02: ত্বকের অনুপযুক্ত ক্লেনজার ব্যবহার করা

ভুল #02: ত্বকের অনুপযুক্ত ক্লেনজার ব্যবহার করা

স্নানের পর আপনার ত্বক একদম স্বাভাবিক থাকা দরকার; ত্বকে টান ধরা বা চুলকোনো মানে আপনার ক্লেনজারে কিছু গলতি আছে। স্নানের পর ত্বকে খুব পিছলানো পরিষ্কার ভাব হলেও বুঝতে হবে ত্বক শুষ্ক হয়ে যাচ্ছে। এই ব্যাপারটাকেই আটকাতে হবে। ক্লেনজার কেনার সময় লেবেল পড়ে বুঝে নিন সেটি আপনার ত্বকের উপযোগী কিনা। যাঁদের ত্বক শুষ্ক প্রকৃতির, তাঁরা ক্রিম-বেসড ক্লেনজার ব্যবহার করুন। যাঁদের ত্বক তেলতেলে, তাঁরা বেছে নিন হালকা জেল-বেসড ক্লেনজার। খুব সুগন্ধি বডিওয়াশ এড়িয়ে যাওয়াই ভালো, কারণ এই ধরনের বডিওয়াশে ত্বক শুষ্ক হয়ে যায়, জ্বালা বা চুলকানিও হতে পারে।

 

ভুল #03: খুব জোরে গা ঘষা

ভুল #03: খুব জোরে গা ঘষা

মনে রাখবেন, জোরে জোরে গা ঘষলেই ত্বক পরিষ্কার হয় না। বরং তাতে ত্বক লাল হয়ে যায়, ত্বকে জ্বালা আর প্রদাহ তৈরি হয়। হালকা হাতে বৃত্তাকারে মাসাজ করলেই ত্বকের ওপরের সব ধুলোময়লা তুলে ফেলতে পারবেন, রক্তসংবহন ভালো হবে এবং ত্বক হয়ে উঠবে স্বাস্থ্যোজ্জ্বল।

 

ভুল #04: স্নানের পর ময়শ্চারাইজার না মাখা

ভুল #04: স্নানের পর ময়শ্চারাইজার না মাখা

স্নানের পরে ত্বকে তেমন টান না ধরলে ময়শ্চারাইজার মাখা বাদ দিয়ে দেন অনেক মেয়ে। এটা কিন্তু খুব বড় ভুল। অল্প ভেজা ত্বকে ময়শ্চারাইজার মেখে নিলে আর্দ্রতা ত্বকের গভীরে আটকে থাকে, ত্বক সুস্থ রাখার জন্য এটা খুব দরকার। ত্বকে ময়শ্চারাইজার না মাখলে ত্বকের প্রতিরোধ ব্যবস্থা ভেঙে পড়ে যা থেকে পরে ত্বকের বড় ক্ষতি হওয়ার আশঙ্কা থেকে যায়।

 

ভুল #05: স্নানের সরঞ্জাম পরিষ্কার না করা

ভুল #05: স্নানের সরঞ্জাম পরিষ্কার না করা

মেকআপ ব্রাশ আর স্পঞ্জ যেমন নিয়মিত পরিষ্কার করতে হয়, ঠিক তেমনি পরিষ্কার রাখুন আপনার লুফা, ওয়াশক্লথ আর পিউমিস স্টোন। তা না হলে স্নানের সরঞ্জামে জমে থাকা শরীরের কোষ আর বাথরুমের ভেজা পরিবেশ দুই মিলিয়ে ব্যাকটেরিয়ার আঁতুড়ঘর হয়ে উঠবে সে সব জিনিসপত্র যা থেকে সংক্রমণ হওয়া খুব স্বাভাবিক! তাই স্নানের সরঞ্জাম পরিষ্কার করে ধুয়ে রাখুন, আর নিয়মিত সময়ের ব্যবধানে পালটে ফেলুন। তাতে সরঞ্জামগুলো ঠিকমতো কাজ করবে, স্বাস্থ্যও বজায় রাখতে পারবেন।