বিশ্রী ব্রণর হাত থেকে নিস্তার পাওয়ার জন্য মেয়েরা করেন না এমন কোনও কাজ নেই! কিশোর বয়সে স্পট ট্রিটমেন্ট হিসেবে টুথপেস্ট লাগানো থেকে শুরু করে স্বাবলম্বী হওয়ার পর দামি দামি ত্বক পরিচর্যার জিনিস কেনা, বাদ যায় না কোনও কিছুই! তবে মাঝে মাঝে এমন একটা প্রডাক্ট হাতে এসে যায় যা ব্রণ কমাতে দারুণ কার্যকরী, কিনতে গেলে ব্যাগের ওপর চাপ পড়ে না, আর দীর্ঘমেয়াদি ব্যবহারের জন্যও একদম আদর্শ! ভাবছেন কিসের কথা বলছি? উত্তর হল, পিম্পল প্যাচ!

ব্রণ নির্মূল করতে পিম্পল প্যাচ দারুণ ভালো কাজ করে। এটি আসলে সাধারণ হাইড্রোক্লোরাইড প্যাচ যা স্টিকারের মতো ব্রণর ওপরে আটকে দিলেই রাতারাতি নির্মূল হয় ব্রণ। আসুন দেখে নিই কীভাবে কাজ করে এই প্যাচ।

 

হাইড্রোক্লোরাইড প্যাচ কী?

হাইড্রোক্লোরাইড প্যাচ কী?

পিম্পল প্যাচ হল একধরনের স্বচ্ছ (কিছু রঙিন প্যাচও পাওয়া যায়) স্টিক-অন প্যাচ যাতে হাইড্রোক্লোরাইড দেওয়া থাকে। ডাক্তারেরা বহু বছর ধরেই ব্যান্ডেজে হাইড্রোক্লোরাইড ব্যবহার করে আসছেন। এই যৌগটি ক্ষতস্থানকে বাইরের পরিবেশ থেকে সুরক্ষিত রাখে এবং আর্দ্র পরিবেশে ধীরে ধীরে ক্ষত সারিয়ে তোলে। যে কোনও সংক্রমণ সারানোর এটিই হল স্বাভাবিক পদ্ধতি।

 

হাইড্রোক্লোরাইড প্যাচ কীভাবে কাজ করে?

হাইড্রোক্লোরাইড প্যাচ কীভাবে কাজ করে?

হাইড্রোক্লোরাইড প্যাচ কোমলভাবে অতিরিক্ত তরল পদার্থ - ব্রণর ক্ষেত্রে পুঁজ আর তেল - শুষে নেয়। ব্রণর ওপর ব্যান্ডেজের মতো আটকে থাকে বলে আপনি ব্যাকটেরিয়া ভরা আঙুল দিয়ে ব্রণ স্পর্শ করতে পারেন না, ফলে সংক্রমণের আশঙ্কা থাকে না। জীবাণুমুক্ত পরিবেশে ব্রণ দ্রুত শুকিয়ে যায়, দাগ বা প্রদাহ কিছুই হয় না।

 

সিস্টিক অ্যাকনের ক্ষেত্রে কি হাইড্রোক্লোরাইড প্যাচ কাজ করে?

সিস্টিক অ্যাকনের ক্ষেত্রে কি হাইড্রোক্লোরাইড প্যাচ কাজ করে?

এমনিতে সাধারণ পুঁজভরা ব্রণর ক্ষেত্রে পিম্পল প্যাচ যথেষ্ট ফলপ্রসূ। কিন্তু সিস্টিক অ্যাকনের শেকড় যেহেতু ত্বকের অনেক গভীরে বিস্তৃত থাকে, তাই এ ক্ষেত্রে কিন্তু এই প্যাচ তেমন কাজের নয়। সিস্টিক অ্যাকনের বেলায় পিম্পল প্যাচ একটিই কাজে লাগে, তা হল লালচেভাব কমানো। টি ট্রি অয়েল দেওয়া পিম্পল প্যাচ আর একটু বেশি কাজের। তা ছাড়া মেকআপ করার সময় সিস্টিক অ্যাকনের ওপর পিম্পল প্যাচ লাগিয়ে তার ওপরে ফাউন্ডেশন লাগাতে পারেন, তাতে মেকআপ সরাসরি ব্রণর সংস্পর্শে আসবে না।

সিস্টিক অ্যাকনের ওপরে পিম্পল প্যাচ লাগানোর সময় একটু সাবধান থাকতে হবে আপনাকে। সিস্টিক অ্যাকনে হলে ত্বক এমনিতেই খুব স্পর্শকাতর থাকে। অন্যদিকে পিম্পল প্যাচে খুবই সক্রিয় নানা উপাদান থাকে যা আপনার স্পর্শকাতর ত্বকে বিরূপ প্রতিক্রিয়া তৈরি করতে পারে। সারা রাত স্টিকার লাগিয়ে রাখলে আঠার কারণেও ত্বকে সমস্যা দেখা দিতে পারে। তা ছাড়া নোংরা ত্বকে কখনওই পিম্পল প্যাচ লাগাবেন না। প্রতিবার প্যাচ লাগানোর আগে মুখ ধুয়ে পরিষ্কার করে নিন।