সুন্দর আর গ্ল্যামারাস হয়ে ওঠার প্রশ্নে লিকুইড লিপস্টিকের বিকল্প নেই! লিকুইড লিপস্টিক ঠোঁটে নিখুঁত করে লাগানো যায়, ঘেঁটে বা মুছে যায় না, ফলে যে কোনও মেয়ের মেকআপ ব্যাগে লিকুইড লিপস্টিক থাকাটা মাস্ট! কিন্তু বহুদিন ধরে বাজারে থাকা সত্ত্বেও লিকুইড লিপস্টিক পরতে গিয়ে অনেক মেয়েই সমস্যায় পড়েন। লিকুইড লিপস্টিক যদি আপনার ঠোঁটকে শুকনো করে দেয়,

যদি ঠোঁটের রেখায় আর ভাঁজে লিপস্টিক জমে থাকে, তা হলে নিশ্চিতভাবেই কিছু ভুল করছেন আপনারা। তবে চিন্তার কিছু নেই! আমরা আপনাদের শিখিয়ে দিচ্ছি লিকুইড লিপস্টিক পরার সহজ উপায়। দেখে নিন কীভাবে নিখুঁত করে পরবেন আপনার লিকুইড লিপস্টিক...

লিকুইড লিপস্টিক পরুন একেবারে নিখুঁত টানে: শিখে নিন ধাপে-ধাপে

ধাপ 01: প্রথমেই কোমল লিপ স্ক্রাব/ lip scrub দিয়ে ঠোঁট এক্সফোলিয়েট করে নিন। তাতে ঠোঁটে জমে থাকা মৃত কোষ উঠে যাবে, ঠোঁট মসৃণ আর টসটসে দেখাবে।

ধাপ 02: লিকুইড লিপস্টিক/ liquid lipsticks-এর ম্যাট ফরমুলায় ঠোঁট শুষ্ক হয়ে যেতে পারে। তাই লিপস্টিক পরার আগে অবশ্যই ঠোঁটে ভেসলিন লিপ থেরাপি ভিটামিন ই-অরিজিনাল/ Vaseline Lip Therapy Vitamin E - Original-এর মতো কোনও হাইড্রেটিং লিপ বাম লাগিয়ে নিতে হবে। লিপ বাম লাগানোর পর কয়েক মিনিট অপেক্ষা করুন, যাতে বাম ঠোঁটে পুরোপুরি শুষে যায় (এই সময়টা বাকি মেকআপ করতে পারেন), তারপর পরের ধাপে যান।


ধাপ 03: এর পরের ধাপে ঠোঁটের আউটলাইন এঁকে নিন ল্যাকমে অ্যাবসলিউট থ্রিডি লিপ লাইনার/  Lakme Absolute 3D Lip Liner দিয়ে। ঠোঁটের স্বাভাবিক রঙের সবচেয়ে কাছাকাছি শেডের লাইনার বেছে নিন। ঠোঁটের আউটলাইন আঁকা হয়ে গেলে মাঝের অংশটাও লিপ লাইনার/ lip liner দিয়ে রং করুন। তাতে রঙের অসামঞ্জস্য হবে না, লিকুইড লিপস্টিকেরও চমৎকার একটা বেস তৈরি হবে।

ধাপ  04: এবার ল্যাকমে অ্যাবসলিউট ম্যাট মেল্ট মিনি লিকুইড লিপ কালার/ Lakme Absolute Matte Melt Mini Liquid Lip Color থেকে পছন্দের রং বেছে নিন। ঠোঁটের মাঝখান থেকে লাগাতে শুরু করুন (ধার থেকে নয়)। এতে ঠোঁটের শেপ ঠিক করতে সুবিধ্র হয় এবং ঠোঁট পুরন্ত দেখায়।

ধাপ 05: একেবারে শেষ ধাপে ঠোঁটে বাড়তি ডেফিনিশন আনতে আর ঠোঁটের কোনায় ধেবড়ে যাওয়া লিপস্টিক মুছতে কনসিলার ব্যবহার করুন। সামান্য একটুখানি কনসিলার ফ্ল্যাট ব্রাশে করে নিয়ে ঠোঁটের ধারে আর কোনায় লাগিয়ে নিন। আর দেখুন, কী সুন্দর নিখুঁত করে লিপস্টিক পরে ফেলেছেন আপনি!