শীতের মরশুম এগিয়ে আসছে ক্রমশ। সরু নুডল স্ট্র্যাপ বা স্লিভলেস পোশাক তুলে রেখে এবার সময় নিজেকে ভালো করে গরম কাপড়ে মুড়ে ফেলার, আর সেই সঙ্গে অপ্রয়োজনীয় স্কিনকেয়ার উপাদান সরিয়ে রেখে শীতের উপযোগী ত্বক পরিচর্যার সম্ভার নিয়ে আসার। ঘন তেলতেলে ক্রিম আর পুষ্টিকর লোশন দিয়ে শীতের ত্বকের যত্ন করার সময় আমরা একটা প্রয়োজনীয় অঙ্গ অজান্তেই বাদ দিয়ে দিই প্রথমে! বলুন তো কোন অঙ্গ? হ্যাঁ, ঠোঁটের কথাই বলছি! ঠোঁটের দিকে শুরুতে আমাদের কোনও খেয়ালই থাকে না, তারপর টনক নড়ে ঠোঁট যখন শীতের দিনে প্রচণ্ড শুকনো চামড়া ওঠার মতো হয়ে যায়! কিন্তু আর না! ফাটা ঠোঁটের যন্ত্রণা যাতে আর সহ্য করতে না হয়, তাই আমরা নিয়ে এসেছি চারটি সহজ টিপস, যা মেনে চললে এই শীতে ঠোঁট আর ফাটবে না! চোখ বুলিয়ে নিন...

 

01. বেশি করে জল খান

01. বেশি করে জল খান

এই লেখাটা কি কম্বলমুড়ি দিয়ে বসে পড়ছেন? তা হলে কয়েক সেকেন্ডের জন্য বিছানা ছেড়ে উঠে পড়ুন। সোজা রান্নাঘরের দিকে যান! ভর্তি জলের বোতলটা দেখতে পাচ্ছেন? আপনার শুষ্ক ঠোঁটের সমাধান লুকিয়ে আছে ওই বোতলে। শরীরে আর্দ্রতা জোগানোর পাশাপাশি জল আপনার ঠোঁটের হারিয়ে যাওয়া আর্দ্রতাও ফিরিয়ে দেয়। অন্য কথায় শীতে ঠোঁট ফেটে যাওয়া বা ঠোঁট ফেটে রক্ত পড়ার মতো সমস্যাগুলো থেকে ঠোঁটকে সুরক্ষিত রাখে জল। বিশেষ টিপস: জিভ দিয়ে ঠোঁট চাটবেন না; এতে ঠোঁট খুব তাড়াতাড়ি শুকিয়ে যায়।

 

02.আর্দ্রতা পেতে দুধের সর

02.আর্দ্রতা পেতে দুধের সর

মা ঠাকুমারা ঠোঁট নরম রাখতে দুধের সর মাখতে বলতেন! আর এই টোটকাটি সত্যিই কাজ করে! টাটকা মিল্ক ক্রিম বা দুধের সরের ভিটামিন আর মিনারেল ঠোঁট আর্দ্র রাখে, অন্যদিকে দুধের ল্যাকটিক অ্যাসিড মৃত কোষ সাফ করে দেয়। ঠোঁটে খনিকটা দুধের সর লাগিয়ে কিছুক্ষণ রাখুন, তারপর হালকা গরম জলে ভেজানো তুলো দিয়ে মুছে ফেলুন। নরম গোলাপি স্বাস্থ্যবান ঠোঁট পেতে রোজ লাগাতে পারেন।

 

03.সপ্তাহে দু' তিনবার এক্সফোলিয়েট করুন

03.সপ্তাহে দু' তিনবার এক্সফোলিয়েট করুন

মুখের মতোই ঠোঁট থেকে শুকনো খসখসে চামড়া তুলতে এক্সফোলিয়েট করা দরকার। এক্সফোলিয়েট করলে ঠোঁট নরম আর মসৃণ হয়, ঠোঁটে রক্ত সঞ্চালনও উন্নত হয়ে ওঠে। রেডিমেড লিপ স্ক্রাব কিনে বাড়তি খরচ করতে না চাইলে বানিয়ে নিন বাড়িতেই। এক চাচামচ মধুর সঙ্গে দু' চাচামচ চিনি মিশিয়ে মিশ্রণটা ঠোঁটে লাগিয়ে 30 সেকেন্ড হালকা হাতে ঘষুন। 5-10 মিনিট রেখে হালকা গরম জলে ধুয়ে ফেলুন। বিশেষ টিপস: ঠোঁট এক্সফোলিয়েট করার সময় খুব আলতো হাতে করবেন, আর সপ্তাহে একবারের বেশি করবেন না।

 

04.হাতের কাছে সবসময় রাখুন লিপ বাম

04.হাতের কাছে সবসময় রাখুন লিপ বাম

ঠোঁটে পুষ্টি জুগিয়ে তা আর্দ্রই রাখার পাশাপাশি লিপ বাম ঠোঁটের ওপর একটি সুরক্ষার আস্তরণ তৈরি করে, ফলে বাইরের পরিবেশজনিত কোনও কারণে ঠোঁটের ক্ষতি হতে পারে না। এ ব্যাপারে আমাদের পছন্দের লিপ বাম হল, ভেসলিন লিপ থেরাপি টিন – অ্যালো / Vaseline Lip Therapy Tin - Aloe. । এই লিপ বামটি একটি ছোট্ট কৌটোয় পাওয়া যায়, যা আপনার হ্যান্ডব্যাগে সহজেই ধরে যাবে। অ্যালো ভেরার নির্যাসযুক্ত এই লিপ বামটি ঠোঁটের গভীরে আর্দ্রতা ধরে রাখে, ঠোঁট করে তোলে চকচকে আর ঠোঁট সুন্দর স্বাস্থ্যোজ্জ্বল দেখায়। আর কী চাই!