ব্রণ ত্বকের খুব সাধারণ আর চেনা সমস্যা৷ আপনি প্রাণপণে চাইলেও কিছুতেই ব্রণ যেন পিছু ছাড়ে না! খুব জরুরি কোনও অনুষ্ঠান আছে, প্রেমিকের সঙ্গে দেখা করার কথা, দীর্ঘদিন পরে কোথাও বেড়াতে যাচ্ছেন, ব্রণ সর্বত্র আপনার সঙ্গী হয়ে ঠিক জুটে যাবে!

আমাদের প্রত্যেকের ত্বকের ধরন কিন্তু আলাদা আলাদা, আর তাই ত্বকে যখন ব্রণ দেখা দেয়, তাদের মোকাবিলা করার পদ্ধতিও আলাদা আলাদা৷ আমরা এখানে জানাচ্ছি, কেমন করে প্রতিটি জন্মরাশি অনুযায়ী ত্বক কীভাবে এই সমস্যার মোকাবিলা করে৷ আপনিও নিজের রাশিটির সঙ্গে মিলিয়ে দেখতে পারেন৷

মেষ
বৃষ
মিথুন
কর্কট
সিংহ
কন্যা
তুলা
বৃশ্চিক
ধনু
মকর
কুম্ভ
মীন

মেষ
 

মেষ

রাশিচক্রের সবচেয়ে প্রথমে আছে মেষ৷ তাই এই রাশির জাতক-জাতিকা সবসময় সবকিছুতেই সেরা জায়গাটা দখল করে থাকে৷এরা চমৎকারভাবে প্রতিটি জিনিসের মোকাবিলায় সমর্থ, শুধু ব্রণ ছাড়া৷ তাই এদের চারিত্রিক বৈশিষ্ট্য হল, অধৈর্য হয়ে রান্নাঘরে ছুটে গিয়ে চটজলদি প্রতিকারের খোঁজ করা৷ সে টুথপেস্ট থেকে শুরু করে অ্যাপল সাইডার ভিনিগার ... সবকিছুই হতে পারে৷ এদের প্রবণতাই হল যত তাড়াতাড়ি সম্ভব ব্রণর কবল থেকে মুক্তিলাভ৷

বৃষ
 

বৃষ

বৃষরাশিতে যাদের জন্ম, তারা সচরাচর খুব আরামপ্রিয় স্বভাবের৷ এরা সবচেয়ে ভালবাসে সমুদ্রতটে বা স্পাতে আরাম করতে৷ বেশ চারদিকে সুগন্ধ থাকবে, মৃদু শব্দ... মানে বেশি আওয়াজ হবে না৷ এদের প্রবণতাই হল সুযোগ পেলেই ছুটি কাটাতে এদিক সেদিক যাওয়ার ফিকির খোঁজা৷ ফলে ব্রণ হওয়া  মানেই একটু বাড়তি আরাম প্রয়োজন... তেমন ইঙ্গিত৷ তাই ব্রণর সূচনা দেখা দেওয়া মানেই ব্যাগ গুছিয়ে বেরিয়ে পড়া৷

মিথুন
 

মিথুন

মিথুন রাশিতে যাদের জন্ম, তাদের নতুন নতুন বিষয়ে জানার আগ্রহ অতি প্রবল৷ আর সেই কারণেই নিজেদের ঘাড়ে যেচে বেশি কাজও নেয়৷ খুব কমই এমন মিথুন রাশির মানুষ দেখবেন, যে একগাদা কাগজপত্রের স্তূপে ঘাড় গুঁজে বসে নেই! এদের মাথাব্যথাও নেই ব্রণ বা অন্য কোনও ত্বকের সমস্যার ব্যাপারে!

কর্কট
 

কর্কট

কর্কট মানে কাঁকড়া৷ রাশিচক্রে এদের চিহ্ন হল জল৷ এরা স্বভাবে অত্যন্ত আবেগপ্রবণ আর সংবেদনশীল৷ এক ঘণ্টা ধরে ব্রণ নিয়ে নিজের মনে গজগজ করবে, তারপর উঠে পড়ে আগেই যা করার ছিল, সেই কাজে মন দেবে |

সিংহ
 

সিংহ

রাশিচক্রের জগতের রাজা-রানি হল সিংহ রাশির জাতক-জাতিকা৷ এরা সব কিছুর কেন্দ্রবিন্দু হতে ভালবাসে এবং সকলের মনোযোগ আকর্ষণ করতে পারাটা দারুণ উপভোগ করে৷ এদের সবচেয়ে পছন্দ যে কোনও সমস্যার  চটজলদি সমাধান, সে চর্মরোগ বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নিয়েই হোক অথবা নিজেদের আবিষ্কার করা কোনও টোটকার সাহায্যে!

কন্যা
 

কন্যা

এরা বাস্তববুদ্ধিসম্পন্ন, যুক্তিবাদী এবং জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে নিয়মমাফিক মেপে মেপে  পা ফেলায় বিশ্বাসী৷ এদের ত্বকের সমস্যা প্রায় থাকে না বললেই চলে৷ যদি বা কখনও এমন সমস্যা দেখাও দেয়, এরা সঙ্গে সঙ্গে ভাজাভুজি, বাইরের আজেবাজে খাবার খাওয়া একেবারে কমিয়ে বা বন্ধই করে দেয়, যোগব্যায়ামে মন দেয়, মনকে চাপমুক্ত রাখতে চেষ্টা করে আর ব্রণ নির্মূল করার জন্য বাজারের সেরা ওষুধ বা টোটকা ব্যবহার করে৷

তুলা
 

তুলা

এই রাশিতে জন্ম যাদের, তারা সমতা বা সাযুজ্য বিষয়ে বলতে গেলে দারুণ  বাতিকগ্রস্ত৷ এদের সর্বক্ষণ চেষ্টা থাকে, কী করে জীবনের প্রতিটি ক্ষেত্রে ভারসাম্য বজায় রাখা যায়৷ নিজেদের সমস্যার নিজেরা সমাধান না খুঁজে অন্যদের উপরে দায়িত্ব দিয়ে দেয়৷ এমনকী ব্রণ সারানোর মতো সহজ সমস্যার ক্ষেত্রেও তার ব্যতিক্রম হয় না৷

বৃশ্চিক
 

বৃশ্চিক

বৃশ্চিক রাশিতে যাদের জন্ম, তারা আবার অন্যরকম! নিজেদের যে কোনও সমস্যা দেখা দিলে এরা সব কিছু একপাশে ঠেলে সরিয়ে দিয়ে সেই সমস্যা নিয়ে উঠে পড়ে লাগবে৷ ইন্টারনেট ঘেঁটে একগাদা তথ্যপ্রমাণ জড়ো করে পরিকল্পনা ফেঁদে ফেলবে, কী করে সমস্যার সমাধান হবে এবং সেইভাবেই ছক কষে এগোবে৷ অন্য অনেক রাশির মানুষজনের মতো এরা কিন্তু একেবারেই আরামপ্রিয় আর অলস প্রকৃতির নয়৷

ধনু
 

ধনু

এই রাশির জাতক-জাতিকা  সর্বক্ষণ জ্ঞানপিপাসু৷ তারা ধীশক্তিসম্পন্ন, দার্শনিক ধরনের৷ ব্রণ-প্রতিষেধক ওষুধপত্রের জন্য অর্থ ব্যয় করতে নেহাতই অরাজি৷ বরং তার বদলে সমস্যার গভীরে গিয়ে প্রকৃত কারণ খুঁজে বার করার চেষ্টা করবে৷ আর একবার তাতে সফল হলে সব দিক দিয়ে সমস্যা প্রতিরোধ করতে একটুও পিছপা হবে না |

মকর
 

মকর

প্রাচীনপন্থী আর আবেগপ্রবণ৷ ব্রণ-প্রতিষেধক বাজারি ওষুধপত্রের তুলনায় এরা নিজেদের হাতে তৈরি টোটকাতেই অনেক বেশি আস্থা রাখে৷ এরা ব্রণতে অ্যালো ভেরা জেল বা মধু আর দারচিনির প্রলেপ লাগাবে, যতদিন না ব্রণ পুরোপুরি সেরে যায়৷

কুম্ভ
 

কুম্ভ

কুম্ভ অর্থাৎ জলের কলস বা কলসি৷ এরা গভীরভাবে চিন্তাশীল এবং অত্যন্ত প্রত্যুৎপন্নমতি৷ এরা তাড়াহুড়ো করে কোনও কাজ করে না৷ তাই বিশেষজ্ঞর মতামত নিতে আগ্রহী হবে অথবা বিচার-বিবেচনা করে নিজেদের ত্বকের পক্ষে যে ব্রণ-প্রতিরোধী ওষুধটি সবচেয়ে কার্যকরী হবে, সেটিই ব্যবহার করবে |

মীন
 

মীন

রাশিচক্রে এটি আসে সবচেয়ে শেষে৷ এই রাশি প্রতি মুহূর্তে কল্পনা আর বাস্তবের যে  বিভাজন, সেটির প্রতিনিধিত্ব করে৷ এই রাশির জাতক-জাতিকা অত্যন্ত উদারচেতা ও  দয়ালু৷ ত্বকের যত্ন, ব্রণর হাত থেকে মুক্তি... এ সব ব্যাপারেও তারা অত্যন্ত সহিষ্ণু এবং যত্নবান৷ এরা ব্রণর উপরে যা হোক কিছু হাতের কাছে পেলেই লাগিয়ে দেওয়ার মানুষ নয়৷ তার বদলে খুব সন্তর্পণে এটির জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেবে এবং ধৈর্য ধরে অপেক্ষা করবে যাতে একেবারে নিজে থেকে ঠিকঠাক সেরে যায়৷