শুষ্ক ত্বকের নানা সমস্যার মোকাবিলা করতে করতে জেরবার? তা হলে হয়তো 'হ্যালুরনিক অ্যাসিড' নামটা আপনি কখনও না কখনও শুনে থাকবেন! শুষ্ক ত্বকের কাছে হ্যালুরনিক অ্যাসিড আশীর্বাদের মতো। মূলত এটি চিনির যৌগ যা ত্বকে পাওয়া যায় এবং এটি ত্বকে আর্দ্রতা জোগায় ও ত্বকের নরম টানটানভাব বজায় রাখে। হ্যালুরনিক অ্যাসিড শরীরে স্বাভাবিকভাবে উপস্থিত থাকলেও অনেক সময় শুষ্ক আর্দ্রতাহীন ত্বক তার সমস্ত উপকারিতা কাজে লাগাতে পারে না, আর এই জায়গাতেই বাইরে থেকে হ্যালুরনিক অ্যাসিড জাতীয় প্রডাক্টের জোগান দরকার হয়। ত্বক নরম টানটান করা থেকে শুরু করে বয়সের দাগছোপের গতি কমিয়ে দেওয়া পর্যন্ত নানা উপকারিতা রয়েছে হ্যালুরনিক অ্যাসিডের। শুষ্ক ত্বকের পক্ষে কেন হ্যালুরনিক অ্যাসিড দারুণ উপকারী, তা বোঝাতে রইল পাঁচটি কারণ।

শুষ্ক ত্বকের কাছে কেন আশীর্বাদ হ্যালুরনিক অ্যাসিড? জেনে নিন 5টি কারণ

 

01. নিমেষে আর্দ্রতা

01. নিমেষে আর্দ্রতা

জানেন কি, হ্যালুরনিক অ্যাসিড তার আনবিক ওজনের তুলনায় 1000 গুণ পর্যন্ত জল ধরে রাখতে পারে? এই তথ্য থেকেই বুঝতে পারছেন, কতটা হাইড্রেটিং এই উপাদানটি! ত্বকে মাখলে তা ত্বকের গভীরে প্রবেশ করে এবং ত্বকের কোষে জল ধরে রাখে, ফলে ত্বক গভীর থেকে আর্দ্র থাকে। পাশাপাশি, এই উপাদানটি হিউমেকট্যান্ট, অর্থাৎ আবহাওয়া থেকে জল শুষে নিতে পারে। তাই আপনার ত্বকের কাছে হ্যালুরনিক অ্যাসিড হল একটা বড় গেলাস জলের মতো যা ত্বকের তৃষ্ণা মেটাবে নিমেষেই!

বিবি-র পছন্দ: ল্যাকমে অ্যাবসলিউট হাইড্রা প্রো টিন্টেড ময়শ্চারাইজার/  Lakmé Absolute Hydra Pro Tinted Moisturiser

 

02. আঁটোসাটো কোমল ত্বক

02. আঁটোসাটো কোমল ত্বক

ত্বক ঢিলে আলগা হয়ে যাচ্ছে? তার প্রশ্নই নেই আর! ত্বক শুষ্ক থাকলে তা দ্রুত আলগা হয়ে যাওয়ার ভয় থাকে, কিন্তু বাইরে থেকে নিয়মিত হ্যালুরনিক অ্যাসিড মাখলে সে সমস্যা রুখে দেওয়া যায়। ত্বকে আর্দ্রতার জোগান পর্যাপ্ত থাকলে তা মুখ টানটান করে এবং মুখ আরও নবীন আর তরতাজা দেখায়। ত্বক আরও টানটান রাখতে হ্যালুরনিক অ্যাসিড মাখার সময় ফেস রোলার ব্যবহার করতে পারেন! আমরা তো ইতিমধ্যেই প্রেমে পড়ে গেছি!

বিবি-র পছন্দ: ল্যাকমে অ্যাবসলিউট হাইড্রা প্রো ওভারনাইট জেল/ Lakmé Absolute Hydra Pro Overnight Gel

 

03. মসৃণ টেক্সচার

03. মসৃণ টেক্সচার

মসৃণ টানটান ত্বক চাইছেন, অথচ বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছে আপনার শুষ্ক ত্বক? হ্যালুরনিক অ্যাসিড আপনাকে সাহায্য করতে পারে! এই উপাদানটি ত্বকের ইলাস্টিসিটি বাড়িয়ে তোলে এবং পর্যাপ্ত আর্দ্রতার জোগান দিয়ে রুক্ষতা কমায়। অবাঞ্ছিত দাগ আর অমসৃণভাব কমে গিয়ে ত্বক হয়ে ওঠে মসৃণ সুন্দর!

বিবি-র পছন্দ: ল্যাকমে অ্যাবসলিউট হাইড্রা প্রো সিরাম/ Lakmé Absolute Hydra Pro Serum

 

04. অ্যান্টি-এজিং

04. অ্যান্টি-এজিং

শুষ্ক ত্বকে বয়সের দাগছোপ অনেক দ্রুত ফুটে ওঠে। কিন্তু হ্যালুরনিক অ্যাসিড ব্যবহার করে সে সমস্যা মেটানো সম্ভব! ত্বকের ইলাস্টিসিটি আর টানটানভাব বাড়িয়ে তুলে (হ্যাঁ, বাইরে থেকেও) হ্যালুরনিক অ্যাসিড বলিরেখার গভীরতা কমায় এবং সূক্ষ্ম রেখা সহজেই মুছে দিতে পারে।

 

05. স্নিগ্ধ গায়ের রং

05. স্নিগ্ধ গায়ের রং

ত্বকে ঠিকমতো আর্দ্রতা থাকলে তা তরতাজা স্বাস্থ্যবান দেখায়। অনেক কাঠখড় না পুড়িয়ে সহজেই দীপ্তিময় ত্বক পেতে চাইলে বেছে নিন হ্যালুরনিক অ্যাসিড। এটি বাতাসের জলীয় বাষ্প ত্বকের গভীরে ধরে রেখে হাইড্রেটিং এফেক্ট এনে দেয় আর নির্জীব শুষ্ক ত্বকের হাল ফেরায় সহজেই!

বিবি-র পছন্দ: ল্যাকমে অ্যাবসলিউট হাইড্রা প্রো জেল ক্রিম/ Lakmé Absolute Hydra Pro Gel Creme

 

প্রশ্নোত্তর

প্রশ্নোত্তর

01. হ্যালুরনিক অ্যাসিড কি  রোজ ব্যবহার করা ভালো?

হ্যাঁ! হ্যালুরনিক অ্যাসিড সম্পূর্ণ নিরাপদ এবং আপনি এটি দিনে দু'বার ব্যবহার করতে পারেন। দিন আর রাত দু'বেলাই এটি ব্যবহার করলে দ্রুত সুফল পাবেন এবং ত্বকও আর্দ্র থাকবে।

02. হ্যালুরনিক অ্যাসিড কি সেনসিটিভ ত্বকের পক্ষে ভালো?

শুষ্ক আর স্পর্শকাতর ত্বকের পক্ষে হ্যালুরনিক অ্যাসিড সম্পূর্ণ নিরাপদ কারণ এটি কোমল এবং আমাদের শরীরে প্রাকৃতিকভাবেই এই উপাদানটি রয়েছে।

03. হ্যালুরনিক অ্যাসিড থেকে আরও বেশি সুফল পাওয়া কীভাবে সম্ভব?

হ্যালুরনিক অ্যাসিড নিজেই একজন সুপারস্টার! কিন্তু অন্যান্য উপাদানের সঙ্গে মিশিয়ে তা থেকে আরও বেশি সুফল পাওয়া সম্ভব। অন্য সব উপাদানের সঙ্গেই হ্যালুরনিক অ্যাসিড মানিয়ে নিতে পারে, তাই ভিটামিন সি, নিয়াসিনামাইড, সেরামাইড, এমনকী রেটিনলের সঙ্গেও হ্যালুরনিক অ্যাসিড ব্যবহার করতে পারেন আপনি!